অপরাজনীতি মানুষ কখনো মেনে নিবে না : শিক্ষামন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার নির্বাচন ও স্বপ্নের পদ্মা সেতুর উদ্বোধনকে সামনে রেখে অপশক্তি (বিএনপি-জামায়াত) আবারো তাদের অপতৎপরতা জোরদার করছে। তারা এমন সব আস্ফালন করছে, যা পৃথিবীর কোনো রাজনীতিতে গ্রহণযোগ্য হতে পারে না। এদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধভাবে সর্বাত্মক প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। ঐক্যবদ্ধ থেকে এদের প্রতিহত করতে হবে। সবাইকে প্রস্তুত থাকতে হবে এবং রাজপথেই দাঁতভাঙা জবাব দিতে হবে।
‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে বিএনপি-জামায়াত জোটের অশালীন উক্তি ও হত্যার হুমকির’ প্রতিবাদে শুক্রবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে মহিলা আওয়ামী লীগের বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তারা এসব কথা বলেন।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম বলেন, ‘জিয়াউর রহমান প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা নন। তিনি মুক্তিযুদ্ধ থেকে ১৯৭৫ সাল পর্যন্ত যেসব কার্যকলাপ চালিয়েছেন, তাতে পরিষ্কার যে জিয়াউর রহমান আইএসআইয়ের এজেন্ট হিসেবে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছিলেন।’
‘আইএসআইয়ের প্রেসক্রিপশনে বিএনপির জন্ম’ মন্তব্য করে কামরুল ইসলাম বলেন, ‘এই দলটি কোনোদিনই গণতন্ত্রকে বিশ্বাস করতে পারে না। সেনা ছাউনিতে যে দলের জন্ম সেই দলটি কোনো অবস্থায় গণতন্ত্র বিশ্বাস করতে পারে না, গণতন্ত্রের পক্ষে থাকতে পারে না।’
তিনি আরও বলেন, ‘আজ তারা যে স্বাভাবিক কর্মসূচি চালানোর কথা বলে, এটা তাদের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে প্রবেশের একটা মহড়া। তারা স্লোগান দিচ্ছে, ৭৫-এর হাতিয়ার গর্জে ওঠো আরেকবার! বিএনপি যে চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য, তারা ক্রমান্বয়ে সন্ত্রাসের দিকে যাবে, সেই পুরনো কায়দায়। তার একটা মহড়া এখন দিচ্ছে। সবাইকে প্রস্তুত থাকতে হবে এবং রাজপথেই দাঁতভাঙা জবাব দিতে হবে।’
সমাবেশে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেন, ‘যারা মানুষ হত্যা করে এবং দেশের উন্নয়নবিরোধী রাজনীতি করে। তাদের অপরাজনীতি দেশের মানুষ কখনো মেনে নিবে না। এই অপশক্তিকে যে কোনো মূল্যে প্রতিহত করা হবে।’
তিনি আরও বলেন, ‘জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে, স্বপ্নের পদ্মা সেতুর উদ্বোধনকে সামনে রেখে এই অপশক্তি তাদের অপতৎপরতা জোরদার করছে। তারা এমন সব আস্ফালন করছে, যা পৃথিবীর কোনো রাজনীতিতে গ্রহণযোগ্য হতে পারে না।’
দীপু মনি বলেন, ‘তাদের দুঃসাহস তারা আরেকটি ৭৫ ঘটাতে চায়। তারা বলে, ৭৫-এর হাতিয়ারকে আবার গর্জে উঠতে। এই ৭৫ শুধু বাংলাদেশে নয়, সারা বিশ্বের রাজনীতিতে এক নিকৃষ্টতম ঘটনা, সবচাইতে শোকাবহ ঘটনা। সেই অপশক্তি জনগণের রায় নিয়ে গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে দেশ পরিচালনায় আসায় বিশ্বাস করে না। তারা সবসময় ষড়যন্ত্র করে, অত্যাচার নির্যাতনের মাধ্যমে ক্ষমতায় টিকে থাকতে চেয়েছে।’
আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম বলেন, ‘জয় বাংলা স্লোগানকে নিষিদ্ধ করেছিল বিএনপি। রাজাকারদের ইন্ধন দিয়েছিল বিএনপি।’তিনি বলেন, ‘জিয়াউর রহমান বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছিল আর তারেক রহমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার ষড়যন্ত্র করেছিল। তারা আওয়ামী লীগকে ধ্বংস করতে চায়। তাদের দাঁতভাঙা জবাব দেওয়া হবে।’
এই আওয়ামী লীগ নেতা আরও বলেন, ‘ইস্যু সৃষ্টি করে ষড়যন্ত্র করছে বিএনপি। শেখ হাসিনাকে হত্যার ষড়যন্ত্র করলে তা প্রতিহত করা হবে।’
মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাফিয়া খাতুনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মাহমুদা বেগম কৃকের সঞ্চালনায় বিক্ষোভ সমাবেশে সংগঠনের কেন্দ্রীয় ও ঢাকা মহানগরের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *