এই প্রথম বাবা তোমাকে জড়িয়ে ধরতে পারছি না, বাবাকে নিয়ে অপূর্বর আবেগঘন স্ট্যাটাস

বুঝতে শেখার পর থেকে প্রতিবার দিনটি ছিল অপেক্ষার ও আনন্দের। বাবার মুখে হাসি দেখেই অভিনেতা জিয়াউল ফারুক অপূর্বের দিনটি শুরু হতো। ছাত্র থাকাকালীন কিংবা পরে শুটিং ব্যস্ততা যা–ই থাকুক, বাবার জন্য আলাদা সময় বের করতেন। সারপ্রাইজ, উপহার, কত কী নিয়ে হাজির হতেন বাবার সামনে। এবারও বাবার জন্মদিন এসেছে কিন্তু নেই বাবা। জন্মদিনের ১০ দিন আগেই বাবাকে হারান। সেই শোক এখনো বয়ে বেড়াচ্ছেন, এর মধ্যে বাবার জন্মদিন শোক যেন বাড়িয়ে দিয়েছে। ফেসবুকে বাবার স্মৃতি স্মরণ করলেন এই অভিনেতা।

এই প্রথম বাবা তোমাকে জড়িয়ে ধরতে পারছি না, বাবাকে নিয়ে অপূর্বর আবেগঘন স্ট্যাটাস

অপূর্ব তাঁর ফেসবুকে লিখেছেন, বাবা আজ যদি তুমি এখানে কিছু সময়ের জন্য থাকতে, তাহলে আমি বলতে পারতাম, শুভ জন্মদিন বাবা। তখন তুমি আমাকে জড়িয়ে ধরে হাসতে, তোমার চিরচেনা হাসি আমার দিনকে পূর্ণতা দিত। এই প্রথম দিনটিতে তোমাকে জড়িয়ে ধরতে পারছি না। জানি, তোমার আশীর্বাদ সব সময় আমার সঙ্গে থাকবে। তুমিই তো আমার সেরা পথপ্রদর্শক। বাবা তোমার আত্মা শান্তি পাক। মহান আল্লাহ তাআলা আপনাকে জান্নাতুল ফেরদাউস দান করুক (আমিন)।’

১৫ এপ্রিল অপূর্বের বাবা ওমর ফারুক মারা যান। ছয় মাসের বেশি সময় ধরে তিনি ফুসফুসের ক্যানসারে ভুগছিলেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭২ বছর। সেই সময় অপূর্ব জানান, রাতে ঘুমের মধ্যে কোনো একটা সময় আব্বু মারা গেছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। সেদিন সকালে ডাকাডাকির পর যখন কোনো সাড়াশব্দ পাওয়া যাচ্ছিল না, তখন চিকিৎসককে ডাকা হয়। চিকিৎসক এসে সকালের দিকে বাবাকে মৃত ঘোষণা করেন।

প্রতি ঈদে একাধিক কাজে ব্যস্ততা থাকলেও এবার আগের চেয়ে কম কাজ করেছেন এই অভিনেতা। তবে গত বছর শুটিং করা কিছু কাজ প্রচার হবে। তিনটি চ্যানেল ও দুজন পরিচালকের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, এবার ঈদে অপূর্ব অভিনীত ২০টির অধিক নাটক প্রচার হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.