অর্জনের সিংহভাগ চাঁদপুর থেকে পাওয়া : খাদ্য সচিব

আশিক বিন রহিম চাঁদপুর জেলা শিল্পকলা একাডেমির উদ্যোগে গ্রাম বাংলার কৃষকদের ঐতিহ্য নবান্ন উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ উপলক্ষে ৭ডিসেম্বর বুধবার সন্ধ্যায় শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে পিঠা উৎসব ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
নবান্ন উৎসবে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব ও চাঁদপুরের সাবেক জেলা প্রশাসক মো. ইসমাইল হোসেন।
তিনি তার বক্তব্যে বলেন, চাঁদপুরে এসে মনে হলো আমি আমার বাড়িতে ফিরে এলাম। সারাদিন এত ব্যস্ততার মধ্যেও নিজেকে একটু ক্লান্তি মনে হয়নি।
এখানে আসার পর সবাইকে পেয়ে খুব ভালো লেগেছে। চাঁদপুরের যে কোন অর্জনকে মনে হয় নিজের অর্জন। আমার জীবন যা কিছু অর্জন, যা কিছু পাওয়া তার সিংহভাগ চাঁদপুর থেকে পাওয়া। আমাদের দেশীয় অনেক কালচার রয়েছে, তা আমাদের লালন করতে হবে। আপনাদের কাছ থেকে প্রেরণা পেয়ে এগিয়ে গিয়েছি। আমাদের নিজেদের সংস্কৃতিকে অশ্বিকার করা যাবে না। আপনারা যে কোন কাজে আমার সাথে কথা বলবেন। এখানে থাকাকালীন সময়ে সবই আমাকে সহযোগিতা করেছেন।
জেলা প্রশাসক কামরুল হাসানের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন, পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাছির উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল।
সাংবাদিক এম আর ইসলাম বাবুর পরিচালনায়
এসময় উপস্থিত ছিলেন, চাঁদপুর জেলা স্কাউট কমিশনার অজয় কুমার ভৌমিক, বাবুরহাট স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মোশারেফ হোসেন, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের গিয়াস উদ্দিন মিলন, সাবেক সভাপতি ইকবাল হোসেন পাটোয়ারী, শহীদ পাটোয়ারি, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. বশির আহমেদ, মোছামৎ রাশেদ আক্তার প্রমুখ।
নবান্ন উৎসবে নতুন ধানের ভাপা পিঠা, রস পিঠা, তিল পিঠা, আন্ধাসা, চিতায় পিঠা, খেজুরের গুড় পিঠাসহ হরেক রমকের খাবার পরিবেশন করা হয়। নবান্ন উৎসবকে ঘিরে লোকজ সংগীত, নৃত্য ও আবৃত্তি পরিবেশন করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *