অসামাকি কার্যকলাপ যেন না হয়

কাজী মোহাম্মদ ইব্রাহীম জুয়েল মেলা মানেই আনন্দ উৎসব। আর কৃষ্টি কালচার তুলে ধরার নাম হলো মেলা। আমাদের দেশে অনেক মেলাই অনুষ্ঠিত হয়। তবে অধিকাংশ মেলাই দেশের ইতিহাস ঐতিহ্যকে ঘীরে হয়ে থাকে। কিন্তু বাংলাদেশে এর বাইরেও কিছু মেলা হয়ে থাকে। এর মধ্যে চাঁদপুরে ল্যাংটার মেলা অন্যতম। মতলব উত্তরের বেলতলিতে এই মেলা সোলায়মান শাহ নামের কথিক আধ্যাতিক পীরের মাজারকে ঘীরে হয়ে থাকে। প্রতি বছরই এই মেলা অনুষ্ঠিত হয় অত্যন্ত ঝাঁকঝমক ভাবে। সারা দেশ থেকে এই মেলায় লাখো ভক্তের আগমণ ঘটে।

মেলাটি শান্তিপূর্ণ পরিবেশে অনুষ্ঠিত হলেও মেলাকে ঘীরে প্রতিবছরই মাদকসহ বিভিন্ন অপকর্ম সংঘঠিত হওয়ার অভিযোগ রয়েছে। তবে মেলা বাস্তবায়নকারীরা বলছেন এখনে এমন ধরনের কোন কাজ হয় না। আমরাও চাই মেলাটি শান্তিপূর্ণ পরিবেশে অনুষ্ঠিত হোক। তাছাড়া মেলায় যেন কোন মাদক ও আশালীণ কার্যকলাপ সংঘঠিত না হয়। তাছাড়া কারো ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেয়ার মতো কোন কর্মকান্ড করা থেকেও বিরত থাকার জন্য আহবান জানাচ্ছি। এ ব্যপারে মেলা বাস্তবায়নকারীদের পাশাপাশি স্থানীয় প্রশাসনকে তৎপর ভূমিকা রাখার জন্য অনুরোধ করছি।

এছাড়া মেলায় আগমনকারী ভক্তরা যাতে শান্তিপূর্ণভাবে অবস্থান ও চলাফেরা করতে পারে সেদিকেও স্থানীয়দেরকে সহযোগীতার মনোভাব রাখা দরকার। কেননা কারো ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করার অধিকার কারো নেই। এমনকি প্রত্যেকেরই মতপ্রকাশ ও ধর্ম পালনের অধিকার রয়েছে। তাবে কারো কর্মকান্ডে যদি কেউ ব্যাথিত হন তাহলে তা শান্তিপূর্ণভাবে আলোচনার মাধ্যতে সমাধানের উদ্যোগ নেয়া অপরিহার্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published.