আজ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ চাঁদপুর আসছেন

আজ ৫ ডিসেম্বর সোমবার চাঁদপুর সদর উপজেলা ও পৌর আওয়ামী লীগের ত্রি-বাষিক সম্মেলন। আজ বিকেল ৩টায় চাঁদপুর স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে এই দুই ইউনিটের এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। একই মঞ্চে একই সময় সদর ও পৌর আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হওয়ায় চাঁদপুরের সর্বত্র উৎসব মূখর পরিবেশ বিরাজ করছে। বেনার ফেস্টুনে ছেয়েগেছে প্রার্থীদের শুভেচ্ছায়। উক্ত সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ এমপি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, চাঁদপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি এমপি, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক ড. সেলিম মাহমুদ এবং ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী। সম্মেলন উদ্বোধন করবেন চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাছির উদ্দিন আহমেদ।

সভাপতিত্ব করবেন সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নূরুল ইসলাম নাজিম দেওয়ান। প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত থাকবেন চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল।

এই দুই ইউনিটের সম্মেলনে তিন হাজারেরও অধিক কাউন্সিলর ও ডেলিগেট উপস্থিত থাকবেন বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে। সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নূরুল ইসলাম নাজিম দেওয়ানের সাথে এ বিষয়ে কথা হলে তিনি জানান, গঠনতন্ত্র অনুযায়ী কাউন্সিলর করতে হবে। এর বাইরে যাওয়ার সুযোগ নেই। সে হিসেবে আমাদের কাউন্সিলর করা হয়েছে ৫১৮ জনকে। এর বিভাজন হলো- সদর উপজেলার ১৪টি ইউনিয়ন কমিটির ৩১ জন করে ৪৩৪ জন, সদর কমিটির ৬৯ জন এবং কো-অপশন করা ১৫ জন। মোট ৫১৮ জন। আর ডেলিগেট সমান সংখ্যক রাখার বিধান থাকলেও প্রয়োজনে তা বাড়ানো যায়। সে জন্য কাউন্সিলর থেকে দ্বিগুণ করা হয়েছে ডেলিগেট সংখ্যা।

একই নিয়মে চাঁদপুর পৌর আওয়ামী লীগেরও কাউন্সিলর এবং ডেলিগেট সংখ্যা নির্ধারণ করা হয়েছে। সব মিলিয়ে তিন সহস্রাধিক কাউন্সিলর ও ডেলিগেটরের উপস্থিতিতে অনুষ্ঠিত হবে চাঁদপুর সদর ও পৌর আওয়ামী লীগের সম্মেলন।

সম্মেলনকে ঘিরে চাঁদপুর সদর ও পৌর আওয়ামী লীগের মাঝে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা লক্ষ্য করা যাচ্ছে। সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে একাধিক প্রার্থী প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে এই প্রচার প্রচারণা অত্যন্ত সৌহার্দপূর্ণ এবং আনন্দমুখর। প্রত্যেক প্রার্থীর সমর্থকের মাঝে দেখা গেছে বেশ উৎসাহ ও উদ্দীপনা। সকলেই চাচ্ছেন যোগ্য, দলের পরীক্ষিত এবং কর্মীবান্ধব নেতা নেতৃত্বে আসুক। যাঁদের নেতৃত্বে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনসহ দলের সকল কর্মকাণ্ড সঠিকভাবে পরিচালিত হবে বলে অনেক নেতাকর্মীরা আসা করছেন।

স্টাফ রিপোটার, ৫ ডিসেম্বর ২০২২

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *