হাজীগঞ্জে বৈদ্যুতিক আগুনে পুড়লো ৫টি বসতঘর

হাজীগঞ্জে বৈদ্যুতিক আগুনে পুড়েছে ৫টি বসতঘর। এতে করে ঐ পরিবারগুলোর প্রায় ১০ লাখ টাকার ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে নিশ্চিত হওয়া গেছে। বৈদ্যুতিত শর্ট-সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত বলে ধারণা করছে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলো। মঙ্গলবার দিনগত রাতে আগুনের ঘটনা ঘটে হাজীগঞ্জ পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের কংগাইশ গ্রামের আটিয়া বাড়িতে।

ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলো হলেন মৃত আব্দুস সাত্তারের ছেলে মনির হোসেন, মো. শরীফ হোসেন ও মো. সোহাগ হোসেন, মো. ওমর আলীর ছেলে আমিন মিয়া, মৃত আব্দুর জব্বারের ছেলে হারুন অর রশিদ ও আব্দুল মান্নান এবং আবু তাহেরের ছেলে এমরান হোসেন।

আটিয়া বাড়ির লোকজন জানান, এ দিন রাতে মনির হোসেনের বসতঘরে হঠাৎ করে আগুনের লেলিহান শিখা দেখতে পায় বাড়ির লোকজন। মূর্হুতেই চারদিকে আগুনের শিখা আশপাশের ঘরে ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় বিদ্যুৎ থাকাতে আগুন নেভানোর জন্য কেউ এগিয়ে যেতে পারেনি। বিদ্যুতের লোকজন খবর পেয়ে লাইন বন্ধ করেন। এরপরেই হাজীগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে ছুটে গিয়ে বাড়ির লোকজন ও স্থানীয়দের সহযোগিতায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

এদিকে আগুন লাগার খবর পেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোকে সান্তনা দিতে আটিয়া বাড়িতে হাজির হন পৌর মেয়র আ. স. ম. মাহবুব উল আলম লিপন। খাদ্য সামগ্রী ক্রয়ের জন্য এ সময় তিনি তাৎক্ষণিক ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারগুলোর মাঝে নগদ টাকা সহায়তা করেন। এছাড়াও বুধবার দুপুরে স্থানীয় কাউন্সিলর আজাদ হোসেন মজুমদার ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর মাঝে চাল, ডাল, তেল, চিনি ও লবনসহ অন্যান্য খাদ্যসামগ্রী প্রদান করেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোমেনা আক্তার বলেন, পৌরসভা থেকে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের তালিকা পেয়েছি। সরকারি সহযোগিতা প্রদানে এই তালিকা জেলা প্রশাসকের কাছে পাঠানো হবে।

হাজীগঞ্জ প্রতিনিধি

Leave a Reply

Your email address will not be published.