ইরানে আমিনির কবরস্থলে হাজারো মানুষের ঢল, পুলিশের গুলি

 

 

হিজাব ঠিকমত না পরার অভিযোগে গত ১৬ সেপ্টম্বরে ইরানি পুলিশি হেফাজতে মারা যান মাহসা আমিনি (২২)। তার মৃত্যুর ৪০দিন উপলক্ষ্যে শোক জানাতে কুর্দি অধ্যুষিত শহর সাকেজে হাজারো মানুষ জড়ো হয়েছে। এটি মাহসা আমিনির নিজ শহর বলে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যম বিবিসি বলছে, বিক্ষোভকারীদের ওপর গুলি চালিয়েছে ইরানি বাহিনী। সেইসঙ্গে আমিনির কবরস্থলের কাছে হাজার হাজার শোকার্তদের সঙ্গে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনীর সংঘর্ষ হয়েছে।

কুর্দি একটি মানবাধিকার গোষ্ঠীও সাকেজ শহরের জিনদান স্কয়ারে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলি এবং টিয়ারগ্যাস ছোড়ার কথা জানিয়েছে।

 

রিপোর্ট, আমিনির মৃত্যুর ৪০ দিন পূর্তিতে নতুন করে বিক্ষোভ হতে পারে- এ আশঙ্কায় গতকাল বুধবার সাকেজ এবং কুর্দিস্তানের বিভিন্ন অঞ্চলে নিরাপত্তা বাহিনী মোতায়েন করে ইরান।

বিভিন্ন ছবি ও ভিডিওতে দেখা যায়, সাকেজ শহরে প্রচুর দাঙ্গা পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এর পরও হাজার হাজার মানুষ মিছিল করে মাহসাকে যেখানে কবর দেওয়া হয়েছে সেই কবরস্থানের দিকে যাচ্ছে।

ইরানের আধাসরকারি সংবাদ সংস্থা সানা জানায়, কবরস্থানে প্রায় ১০ হাজার মানুষ জড়ো হয়েছিল। তাদের সঙ্গে নিরাপত্তা বাহিনীর সংঘর্ষ বেধে গেলে ওই এলাকায় ইন্টারনেট সংযোগ বন্ধ রাখা হয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, মাহসার স্মরণে শোক প্রকাশ করতে লোকজন কবরস্থানে জড়ো হয়েছিল। দাঙ্গা পুলিশ তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে……সেখান থেকে বেশ কয়েকজনকে গ্রেপ্তারও করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *