আমি সবার জন্য কাজ করে যাচ্ছি : মেজর অব. রফিক

শাহরাস্তি প্রতিনিধি শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বিশ্বে বাংলাদেশ উন্নয়নের রোল মডেল, প্রধান অতিথির বক্তব্যে রাখেন সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও মক্তিযুদ্ধের ১নং সেক্টর কমান্ডার মেজর অব. রফিকুল ইসলাম বীরউত্তম এমপি। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে এ দেশে উল্লেখ যোগ্য উন্নয়ন হয়েছে। গ্রামে-গঞ্জে ছড়িয়ে পড়ছে উন্নয়নের ছোঁয়া। হাজীগঞ্জ ও শাহরাস্তি উপজেলায় সাড়ে ৭’শত কিলোমিটার রাস্তা পাকা করা হয়েছে।

(২৮ ফেব্রুয়ারি) সোমবার দুপুরে চাঁদপুরের শাহরাস্তি উপজেলায় ১ কোটি ১১ লাখ টাকা ব্যয়ে নব-নির্মিত রায়শ্রী উত্তর ইউনিয়ন পরিষদ ভবন ও ১ কোটি ৫৭ লাখ টাকা ব্যয়ে নব-নির্মিত টামটা উত্তর ইউনিয়ন পরিষদ ভবনের উদ্বোধন শেষে স্থানীয় আওয়ামী লীগ কর্তৃক আয়োজিত আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, ১৯৯৬ সালে আমি যখন প্রথম সংসদ সদস্য হই সেই সময়ে হাজীগঞ্জ-শাহরাস্তি উপজেলায় মাত্র ১০ কিলোমিটার পাকা সড়ক পেয়েছি। এখন এ দু’উপজেলায় সাড়ে ৭’শ কিলোমিটার পাকা সড়ক রয়েছে। ডাকাতিয়া নদীর উপর ৮টি সেতু, দুই উপজেলায় সাড়ে ৪ শতাধিক ব্রীজ-কালর্ভাট, ৫ শতাধিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের নতুন ভবন নির্মাণ করেছি।

আমি এই এলাকার অভিভাবক কে আমাকে ভোট দিয়েছে তা দেখার বিষয় নয়। আমি সবার জন্য কাজ করে যাচ্ছি। রাজনৈতিক বিবেচনা করে কোন কাজ হবে না। দলীয় ভাবে কাউকে বঞ্চিত করা যাবে না। ১৯৯৫ সাল থেকে আমি আপনাদের সাথে রয়েছি জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত আপনাদের সাথে থাকতে চাই। আপনাদের সাথে আমার আত্মার সম্পর্ক তা সবসময় বজায় থাকবে।
তিনি বলেন, আমরা শুধুমাত্র গ্রাম-গঞ্জের রাস্তা করেছি তাই নই, মানুষের ভাগ্য উন্নয়নে সাধারণ গৃহহীণ মানুষকে ঘর করে দেয়া হয়েছে। বৈশি^ক মহামারী করোনার সময় হাজীগঞ্জ-শাহরাস্তির গরীব মানুষকে ত্রাণ দেয়া হয়েছে।

শাহরাস্তি-হাজিগঞ্জ উন্নয়ন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, হাজীগঞ্জ-শাহরাস্তি উপজেলায় ব্যাপক হারে উন্নয়ন হয়েছে। যা অতিতের কোন সরকার করতে পারেনি। তারা যদি কিছু কাজও করতো, তাহলে আমাদের ওপর এতো চাপ-সৃষ্টি হতো না।

তিনি আরো বলেন, আমার নির্বাচনী এলাকায় এ বছরের মধ্যে শতভাগ বিদ্যুতায়নের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। বড় বড় কাজগুলো সম্পুর্ন হয়েছে। বড় রাস্তা ঘাট নেই বললেই চলে। তবে গ্রাম পর্যায়ে কিছু লিঙ্ক রোড রয়েছে। যেগুলোর কাজ দ্রুত সম্পন্ন হবে। আমরা উন্নয়নের পাশাপাশি শান্তি-শৃঙ্খলাও নিশ্চিত করেছি। দুই উপজেলায় কারো প্রতি রাজনৈতিক প্রতিহিংসায় হয়রানি করা হয়নি। বলেন, উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রাকে অব্যাহৃত এবং উন্নত বাংলাদেশ গঠনে আওয়ামী লীগ সরকারের বিকল্প নেই।
শাহরাস্তি উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিরীন আক্তারের সভাপত্বি উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক আহসান মঞ্জুরুল ইসলাম জুয়েল
ও রায়শ্রী উত্তর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন মিজানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনাসভায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নাসরিন জাহান চৌধুরী শেফালি, আওয়ামী লীগ নেতা ইঞ্জিনিয়ার মকবুল আহমেদ, শাহরাস্তি পৌর মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের আহবায়ক হাজী আবদুল লতিফ, ভাইস চেয়ারম্যান তোফায়েল আহমেদ ইরান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত) ও সূচীপাড়া উত্তর ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল মজুমদার, উপজেলা প্রকৌ. রেজওয়ানুর রহমান, টামটা উত্তর ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক ফারুক দর্জি, রায়শ্রী উত্তর ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোশারেফ হোসেন মুশু’ টামটা উত্তর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আব্দুর রউফ দর্জি, টামটা দক্ষিণ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি কাজী নজরুল ইসলামসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.