উন্নয়নের ধারাকে নস্যাৎ করার জন্য বিএনপি পাঁয়তারা করছে -ড. মহীউদ্দীন খান আলমগীর

কচুয়া প্রতিনিধি সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মহীউদ্দীন খান আলমগীর বলেছেন, বীর মুক্তিযোদ্ধারা জাতির গর্বিত সন্তান। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে মুক্তিযোদ্ধারা এ দেশের স্বাধীনতা অর্জন ও লাল সবুজের মানচিত্র এনে দিয়েছেন। তাদের অবদান ভোলার মতো নয়। বর্তমান সরকার মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মান ও মর্যাদা বৃদ্ধিতে কাজ করছে, যা অন্য কোনো সরকার করেনি।
গতকাল শনিবার (৩ ডিসেম্বর) দুপুরে চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে ডিজিটাল সনদ ও স্মার্ট কার্ড বিতরণকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
মহীউদ্দীন খান আলমগীর আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশকে সারাবিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে উন্নীত করেছেন। তার এই উন্নয়নের ধারাকে নস্যাৎ করার জন্য বিএনপি বিভিন্নভাবে পাঁয়তারা করছে। বিএনপি দেশটাকে লুটে খেয়েছে। আর আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে দেশের উন্নয়ন করেছে। তাই জনগণ আওয়ামী লীগ সরকারকে গ্রহণ করেছে। জনগণ আগামী নির্বাচনেও আওয়ামী লীগকে বিপুল ভোটে নির্বাচিত করে দেশকে আরও এগিয়ে নেবে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. নাজমুল হাসানের সভাপতিত্বে ও উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা মুহাম্মদ মাহবুব-উল আলমের পরিচালনায় আরও বক্তব্য দেন কচুয়ার উপজেলা চেয়ারম্যান শাহাজাহন শিশির, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সুলতানা খানম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আইয়ুব আলী পাটওয়ারী, সাধারণ সম্পাদক সোহরাব হোসেন চৌধুরী সোহাগ, চাঁদপুর জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সহসভাপতি ইয়াকুব আলী মাস্টার, বীর মুক্তিযোদ্ধা কর্নেল (অব.) মো. ফজলুল হক, কমান্ডার আব্দুর রশিদ পাঠান, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার আব্দুল মবিন, ডেপুটি কমান্ডার জাবের মিয়া, কচুয়া প্রেস ক্লাবের সভাপতি আলমগীর তালুকদার প্রমুখ।
এসময় তিনি আরো বলেন, কচুয়ায় মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে ডিজিটাল সনদ ও স্মার্ট কার্ড বিতরণ করা হয়েছে। শনিবার সকালে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে প্রধান অতিথি হিসেবে সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ড.মহীউদ্দীন খান আলমগীর এমপি বিতরন করেন। প্রধান অতিথি তাঁর বক্তব্যে বলেন, মুক্তিযোদ্ধারা জাতির গর্বিত বীর সন্তান। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে বীর মুক্তিযোদ্ধারা এদেশের স্বাধীনতা অর্জন ও লাল সবুজের মানচিত্র এনে দিয়েছেন। বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। কেননা, তাঁদের অবদান ভুলার মতো নয়। তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকার মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মান ও মর্যাদা বৃদ্ধিতে কাজ করছেন। যা আর অন্য কোনো সরকার করেননি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *