বৃষ্টিতে ভেঙ্গে পরলো নির্মাণাধীন চাঁদপুর রেলওয়ে ফ্লাটফর্মের গাইড ওয়াল

চাঁদপুর বড় স্টেশন এলাকায় রেলওয়ে ফ্লাটফর্মে নির্মাণাধীন গাইড ওয়ালের ১৫০ ফুট ব্যবহারের পূর্বই বৃষ্টির পানিতে ভেঙ্গ পড়েছে। প্রায় ৯০ লাখ টাকা ব্যয়ে কাজটি করছেন চট্টগ্রামের ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান মেসার্স চৌধুরী এন্টার প্রাইজের মালিক রিপন চৌধুরী।

এ ঘটনা ঘটেছে গত ১৯ সেপ্টেম্বর রোববার বিকেল রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনী অফিসের পাশে। সে সময় স্থানটিতে জনসমাগ না থাকায় কোন ধরনের ক্ষয়-ক্ষতি হয়নি।

চাঁদপুর-লাকসামের দায়িত্বরত কর্মকতা এসএসএ/ই ওয়াকর্স মোঃ আতিকুর রহমান অভিযোগ করে বলেন, প্রায় ১শ’ফুট লম্বা ও ২৫ ফুট চওড়া রেলওয়ে ফ্লাটফর্মের গাইট ওয়াল কাজে নিম্নমানের ইট ও সিমেন্ট কম দেওয়ায় কাজের মাত্র ১৫ দিনের মধ্যে ব্যবহারের পূর্বেই ভেঙ্গে পড়েছে।তবে এই কাজটি পুনরায় ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানকে করে দিতে হবে বলে জানান চাঁদপুর-লাকসামের দায়িত্বরত এই কর্মকর্তা।

এ দিকে গতকাল সোমবার ২০ সেপ্টেম্বর ভেঙ্গে পড়াস্থানে রেলওয়ের ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান পুনরায় নিম্নমানের ইট দিয়ে দেয়াল নির্মাণ কাজ শুরু করলে স্থানীয়দের অভিযোগের ভিত্তিতে চাঁদপুর পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ সফিকুল ইসলাম কাজ বন্ধ করে দিয়েছেন বলে জানাযায়।

এসময় স্থানীয় রেলওয়ের স্টাফদেরও একই কথা। বৃর্ষ্টির পানির চাপে ভেঙ্গে গেল ফ্লাটফর্মের গাইট ওয়াল। এটা কেমন কাজই করছেন চট্টগ্রামের ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান মেসার্স চৌধুরী এন্টার প্রাইজের রিপন চৌধুরী।

চাঁদপুর রেলওয়ের এসএ/ই ওয়ার্কস মোঃ আব্দুর নূর জানান, চাঁদপুর বড় স্টেশন এলাকার ফ্লাটফর্ম বর্ধিত করার কাজ চলছে। এ কাজ বিগত ৬/৭মাস যাবত চলছে। বর্তমানেযে স্থানে দেয়াল ভেঙ্গে পড়েছে সে কাজ গত প্রায় ১৫দিন পূর্ব করা হয়েছে। বর্তমান ফ্লাটফর্মের কাজ চলমান রয়েছে। এখানকার স্থানীয় কর্তৃপক্ষের তদারকি সঠিক ভাবে না করার ফলে এমনটি হয়েছে।

এ বিষয়ে চাঁদপুর-লাকসামের দায়িত্বরত কর্মকতা এসএসএ/ই ওয়াকর্স মোঃ আতিকুর রহমান বলেন, চট্টগ্রামের ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান চৌধুরী এন্টার প্রাইজ রেললাইন পাশ সম্প্রাসারন ও ফ্লাটফর্মের কাজের জন্য টেন্ডার প্রক্রিয়ায় প্রায় ৯০লাখ টাকায় এ কাজটি নিয়েছেন। এখানে কোন আরসিসি পিলার স্থাপন করার কাজ করা হচ্ছে না। রেলওয়ের নিজস্ব তহবিল থেকে এ কাজটি করা হচ্ছে। যে কাজ হচ্ছে,তা’ নকশা অনুযায়ী না করায় অতি বৃষ্টির কারনে পানি জমে এ দুর্ঘটনাটি ঘটেছে।

এ বিষয়ে চাঁদপুর পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ সফিকুল ইসলাম জানান, জনগণের অর্থে নির্মিত কাজ নিন্মমানের করায় স্থানীয় এলাকাবাসীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে সোমবার কাজ চলা অবস্থায় দুপুরে তা’বন্ধ করে দিয়েছি। রেলওয়ের উর্ধতন কর্তৃপক্ষ মানসম্মত কাজের নিশ্চয়তা দিলে পুনরায় কাজ করতে পারবে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান।

স্টাফ রিপোর্টার

Leave a Reply

Your email address will not be published.