কচুয়া রাগদৈল উবিতে বিজয় দিবস পালনে বাঁধা দেয়ার অভিযোগ

কচুয়া প্রতিনিধি: চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলার ঐতিহ্যবাহী রাগদৈল ইমাম মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ের মহান বিজয় দিবস উদযাপন অনুষ্ঠানে হামলার চেষ্টা ও বাঁধা দেয়ার ঘটনায় থানায় অভিযোগ করা হয়েছে।

১৬ ডিসেম্বর শুক্রবার সকালে ওই বিদ্যালয়ে ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা আয়োজন করে রাগদৈল উচ্চ বিদ্যালয়ের কতৃপক্ষ।

অনুষ্ঠান শুরুর এক পর্যায়ে সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে স্থানীয় রাগদৈল গ্রামের যুবক মোহাম্মদ হোসাইন ফরাজী ও মোশারফ হোসেন ফরাজীর নেতৃত্বে কয়েকজন বিদ্যালয়ে জোর পূর্বক প্রবেশ করে বিদ্যালয়ের সাবেক সভাপতি মো. মোশাররফ হোসেন ফরাজী মহসিনকে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে অনুষ্ঠান স্থল থেকে বের করে নেয়ার চেষ্টা করে।

এসময় বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক মো. মতিউর রহমান, সহকারী শিক্ষক নাছির উদ্দিনসহ অন্যান্য শিক্ষকবৃন্দ তাদের এ ঘটনার প্রতিবাদ করলে হামলাকারীরা উত্তেজিত হয়ে অনুষ্ঠান ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এসময় বিদ্যালয়ের কোমলমতি শিক্ষার্থীরা ভয়ে এদিক সেদিক ছুটা-ছুটি করে বাড়ী চলে যায়।

পরবর্তীতে বিদ্যালয়ের শিক্ষার পরিবেশ বজায় রাখার স্বার্থে বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক মো. মতিউর রহমান বাদী হয়ে অভিযুক্ত মোহাম্মদ হোসাইন ফরাজী ও মোশারফ হোসেন ফরাজীর বিরুদ্ধে কচুয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার, মাধ্যমিক শিক্ষাকে বিষয় অবহিত করেন এবং তাদের বিরুদ্ধে কচুয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

এদিকে বিদ্যালয়ের শিক্ষক, অভিভাবক ও এলাকাবাসী বিদ্যালয়ে এসে এমন দুঃসাহসী কর্মকান্ড করিচালনা করায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানিয়েছেন।

বিদ্যালয়ের সাবেক সভাপতি ও বর্তমান বিদ্যুৎসাহী সদস্য মো. মোশাররফ হোসেন ফরাজী বলেন- সম্প্রতি সরকারী নিয়মনীতি মেনে বিধিমোতাবেক বিদ্যালয়ের ৩টি পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়। এতে স্থানীয় যুবক মো. হোসাইন ফরাজীসহ কয়েকজন যুবক বিদ্যালয়ের নিয়োগকে কেন্দ্র করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে নানান বিরুপ মন্তব্য করে বিদ্যালয়ের দীর্ঘদিনের সুনাম নষ্ট করে স্ট্যার্টাস দেয় এবং বিভিন্ন ভাবে মিথ্যা অপ-প্রচার চালায়।

পরবর্তীতে শত্রুতার জের ধরে হোসাইন ফরাজী ও মোশারফ ফরাজী বিদ্যালয়ে বিজয় দিবসের অনুষ্ঠান এসে বিশৃঙ্খলা করে অনুষ্ঠান ছত্রভঙ্গ করে এবং আমাকে নানান ভাবে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করে।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত মো. হোসাইন ফরাজী বিদ্যালয়ে বিজয় দিবসের অনুষ্ঠান বানচাল করার বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, বিদ্যালয়ের সাবেক সভাপতি মোশাররফ হোসেন ফরাজী মহসীন সাথে সম্প্রতি বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী নিয়োগ দেয়া ও অন্যান্য বিষয়ে মনমালিন্য হয়। এ বিষয়টিকে কেন্দ্র করে আমাদের বিরুদ্ধে থানায় মিথ্যা অভিযোগ করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *