কচুয়ায় ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা চরম অনিশ্চিয়তায় : প্রণোদনা দাবি

ঘুর্ণিঝড় জাওয়াদ’র প্রভাবে টানা বর্ষণে চাঁদপুরের কচুয়ায় সবজিসহ রবি ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। এর ফলে স্থানীয় বাজারে সব ধরণের সবজির দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। আর্থিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত প্রান্তিক চাষিরা পড়েছেন চরম অনিশ্চিয়তায়। এই অবস্থায় সরকারের কাছে প্রণোদনা দাবি করছেন তারা।

ঘুর্ণিঝড় জাওয়াদের কারণে টানা তিন দিনের বৃষ্টি হওয়ায় কচুয়ায় চরমভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে শীতকালীন সবজি, সরিষা, মসুর, আলু, ধনিয়া ও বোরো বীজতলা। উপজেলা কৃষি বিভাগের তথ্য মতে, ২৮০ হেক্টর শীতকালীন সবজি ক্ষেতের মধ্যে ১১০ হেক্টর হেক্টর জমির ফসল, মরিচ ১০ হেক্টরের ৯ হেক্টর, সরিষার ক্ষেতের মধ্যে প্রায় ১৪৯ হেক্টর, ৩০৬ হেক্টর আলুর ক্ষেতের মধ্যে প্রায় ৩শ’ হেক্টর, প্রায় ৫শ’ হেক্টর গম ক্ষেতের মধ্যে ৯ হেক্টর এবং ৩শ হেক্টর বোরো বীজতলার মধ্যে ২২ হেক্টর বীজতলা তলিয়ে গেছে।

ভূঁইয়ারা গ্রামের ক্ষতিগ্রস্ত কৃষক জামাল হোসেন, জসিম উদ্দিন ও ফারুক হোসেন বলেন, শীতকালীন সবজি বাজারে উঠানোর মূহুর্তে ক্ষেতগুলো বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে যাওয়া ৭০ ভাগ ফসলই নষ্ট হয়ে যাবে। এতে করে বড়ধরণের আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়বেন তারা। এ ক্ষতি কোনভাবেই পুষিয়ে ওঠা সম্ভব হবে না। তাই ক্ষতি পুষিয়ে সরকারের কাছে প্রণোদনা দাবি করছেন তারা।

উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মো. সোফায়েল হোসেন বলেন, ঘুর্ণিঝড় জাওয়াদের কারণেই ফসলের যে ক্ষতি তা অপুরণীয়। তবে কৃষকরা যাতে ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে পারেন তার জন্য আগামীতে তাদের প্রণোদনার আওতায় আনা হবে। ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা তৈরীর কাজ শুরু করেছে কৃষি সম্প্রষারণ অধিদপ্তর।

কচুয়া প্রতিনিধি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *