খেলাধুলা মানুষকে বুদ্ধিদিপ্ত করে তোলে : পুলিশ সুপার

মুহাম্মদ বাদশা ভূঁইয়া চাঁদপুর জেলা পুলিশের আয়োজনে ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সার্বিক সহযোগিতায় মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে দাবা লীগের শুভ উদ্বোধন অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে।
মঙ্গলবার (৮ মার্চ) চাঁদপুর স্টেডিয়ামের প্যাভিলিয়ন ভবনে এ অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন চাঁদপুরের পুলিশ সুপার ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সহ-সভাপতি মো. মিলন মাহমুদ বিপিএম (বার)।
উদ্বোধকের বক্তব্যে পুলিশ সুপার বলেন, খেলাধুলা মানুষকে বুদ্ধিদিপ্ত করে তোলে। এই লীগটি আরো আগে করার কথা ছিলো। কিন্তু পারিপার্শ্বিকতার কারনে একটু দেরি হলো। দেরিতে হলেও আমরা শুরু করতে পেরে আনন্দিত। দাবা খেলাটি আন্তর্জাতিক স্বীকৃত একটি ভালমানের খেলা ও খুব বুদ্ধির খেলা হওয়ায় ক্যারিয়ার গড়ার সুযোগ রয়েছে। দাবা খেলাটি খুব বুদ্ধির খেলা। খুব বড় পরিসরে এই খেলা খেলতে হয় না বলে এটা একটা সুবিধা রয়েছে।
তিনি আরো বলেন, চাঁদপুরের মানুষের অনেক বুদ্ধি রয়েছে। এ খেলাতে সেইসব বুদ্ধি কাজে লাগালে আমরা অনেক ভালো জায়গায় পৌঁছাতে পারবে। ক্ষুদে খেলোয়ারদের জন্যে এই খেলার অনেক সুযোগ রয়েছে। দাবা খেলা একটি আন্তর্জাতিক স্বীকৃত খেলা তাই এতে ক্যারিয়ার গড়ার সুযোগ রয়েছে।
জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা বাবুর সঞ্চালনায় আমন্ত্রিত অতিথিদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন,নৌ পুলিশ সুপার মো. কামরুজ্জামান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও প্রশাসন) সুদীপ্ত রায়, চেম্বার অব কমার্সেও সহ-সভাপতি তমাল কুমার ঘোষ, দাবা কমিটির সাধারণ সম্পাদক আবু নাছের বাচ্চু পাটওয়ারী প্রমূখ। অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তিলাওয়াত করেন, ক্রীড়া সংগঠক আলহাজ্ব সিরাজুল ইসলাম।
নারী দিবসে চাঁদপুর জেলা পুলিশের আয়োজনে আলোচনা সভা
‘টেকসই আগামীর জন্য জেন্ডার সমতাই আজ অগ্রগণ্য’ এ শ্লোগানে আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে চাঁদপুর জেলা পুলিশের আয়োজনে আলোচনা সভা ও সংর্বধনা প্রদান করা হয়ছে। মঙ্গলবার (৮ মার্চ) বিকেলে পুলিশ লাইনস ড্রিলসেডে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন চাঁদপুরের পুলিশ সুপার মো. মিলন মাহমুদ বিপিএম (বার)। তিনি বলেন, মহীয়সী নারীদেরকে আমরা সংবর্ধণা দিতে পেরে নিজেদের ধন্য মনে করছি। আমারা যত উন্নতির দিকে যাচ্ছি তত আমাদের প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে হচ্ছে। এক সময় ছিল যখন নারীরা অফিসে গিয়ে কাজ করবে তা ভাবাই যেতনা। বর্তমান সময়ে প্রায় সকল ক্ষেত্রেই নারীদের অংশগ্রহণ রয়েছে। আমাদের দেশের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, স্পিকার, মন্ত্রী সভার বেশ কয়েকজন সদস্য, জেলা প্রশাসক নারী। আমরা যদি সম-অধিকার চাই তাহলে নারীদেরকেও তাদের মানসিকতার পরিবর্তণ করতে হবে। এখন নারীরা অনেক কঠিন ও পরিশ্রমী কাজের সাথে জড়িত। নারীরা কর্মক্ষেত্রে পুরুষের চাইতে ধৈয্য রাখতে পারে।
অনুষ্ঠানে স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত নারী মুক্তিযোদ্ধা ডা. সৈয়দা বদরুন নাহার চৌধুরী ও ব্রাকের কর্মকর্তা বদরুদুজ্জা আরফিন এ দুই গুণী নারীকে তাদের কর্মের জন্য জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান পূর্বক সংবর্ধিত করা হয়।
অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও প্রশাসন) সুদীপ্ত রায়ের সঞ্চালনায় আরো বক্তব্য রাখেন সংবর্ধিত অতিথি স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত নারী মুক্তিযোদ্ধা ডা. সৈয়দা বদরুন নাহার চৌধুরী, ব্রাকের কর্মকর্তা বদরুদুজ্জা আরফিন, বিশেষ অতিথি চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি গিয়াস উদ্দিন মিলন, সাধারণ সম্পাদক রিয়াদ ফেরদৌস, সাবেক সভাপতি ইকবাল হোসেন পাটওয়ারী, এসআই শামীমা প্রমূখ।
বক্তারা বলেন, নারীর ক্ষমতায়নের রোল মডেল বাংলাদেশ। আজ আমাদের দেশের প্রধানমন্ত্রী, স্পিকার, বিরোধী দলীয় নেত্রীসহ অনেক বড় পদে নারীরা অধিষ্ঠিত। আজ দেশের নারীরা তাদের নিজ দর্পে অনেক এগিয়েছে। সকল দপ্তরে আজ নারীদের উপস্থিতি চোখে পরার মতো। নারী ও পুরুষ উভয় মিলে এ দেশকে গড়ে তুলবো। মায়ের জাত হিসেবে নারীদেরকে অবশ্যই সম্মান করতে হবে। আমাদের এগিয়ে যেতে হলে অর্থনৈতিক মুক্তি দরকার তাই, পুরুষের পাশাপাশি নারীদেরকে চাকুরির ক্ষেত্রে এগিয়ে নিতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.