চাঁদপুরে উপজেলা ভিত্তিক সন্তোষজনক ফলাফল, শীর্ষে মতলব উত্তর

চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলায় এইচএসসি ও আলিম পরীক্ষায় বিগত পরীক্ষার ফলাফলকে পিছনে ফেলে এবার সেরা সাফল্যে অর্জন করেছে। এইচএসসিতে পাশের হারে দেখিয়েছে চমক। বেড়েছ জিপিএ-৫।
এবার পরীক্ষায় এইচএসসিতে পরীক্ষা দিয়েছে ২হাজার ৩ শত ১১ জন, পাশ করেছে ২ হাজার ২ শত ৮৪ জন, পাশের হার ৯৮.৯৬%, জিপিএ-৫ পেয়েছে ৯১ জন। আলিম পরীক্ষা দিয়েছে ১৮৬ জন, পাশ করেছে ১৮১ জন ও পাশের হার ৯৭.৬৬% জন,জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ জন।
এবার এইচ.এস.সি পরীক্ষার ফলাফলে ছেংগারচর সরকারি বিশ্ব বিদ্যালয় কলেজে মোট ৪১৬জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে পাশ করেছে ৪১৪ জন ও পাশের হার ৯৮.৫২%। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩২ জন। নাউরী কলেজ থেকে মোট ৩৫২ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে পাশ করেছে ৩৪৯জন ও পাশের হার ৯৯.১৫%,জিপিএ-৫ পেয়েছে ১১ জন। সুজাতপুর কলেজ থেকে মোট ১৬৭ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে পাশ করেছে ১৬৪জন, পাশের হার ৯৮.২০% ও জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪ জন, শরীফ উল্যাহ হাই স্কুল এন্ড কলেজ মোট ৮৩ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে পাশ করেছে ৮৩জন ও পাশের হার ১০০%। আলী আহম্মদ মিয়া বহুমুখী মহাবিদ্যালয় থেকে মোট ১৫৫ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে পাশ করেছে ১৪৮জন ও পাশের হার ৯৮.৬৭%জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ জন। মুন্সী আজিম উদ্দিন ডিগ্রী কলেজ থেকে মোট ২২৬ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে পাশ করেছে ২২৩ জন ও পাশের হার ৯৮.৬৭%,জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ জন। কালিপুর হাইস্কুল এন্ড কলেজ থেকে মোট ১৮৯ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে পাশ করেছে ১৮৬ জন ও পাশের হার ৯৮.৪২%,জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ জন। নিশ্চিন্তপুর ডিগ্রী কলেজ থেকে মোট ৩৪৫ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে পাশ করেছে ৩৪৪জন ও পাশের হার ৯৯.৭১%,জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৭ জন। লুধুয়া হাই স্কুল এন্ড কলেজ থেকে মোট ১৮২জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে পাশ করেছে ১৭৯জন ও পাশের হার ৯৮.৩৫%,জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩ জন। জীবগাওঁ জে.হক ইচ্চ বিদ্যালয় কলেজ থেকে মোট ৪৯ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে পাশ করেছে ৪৮জন ও পাশের হার ৯৭.৯৬%,জিপিএ-৫ পেয়েছে ২জন।
দি কাটার একাডমি থেকে মোট ৫৫ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে পাশ করেছে ৫৫জন ও পাশের হার ১০০%,জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৬জন। ধনাগোদা তালতলি হাই স্কুল এন্ড কলেজ থেকে মোট ৯২ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে পাশ করেছে ৯১জন ও পাশের হার ৯৮.৯১%।
আলিম পরীক্ষায় ফরাজীকান্দি আল ওয়াসিয়ে কামিল মাদ্রাসা থেকে মোট ২৭ জন অংশগ্রহণ করে পাশ করেছে ২৪জন ও পাশের হার ৯৬%। নেদায়ে ইসলাম মহিলা মাদ্রাসা থেকে মোট ২৯ জন অংশগ্রহণ করে পাশ করেছে ২৯ জন ও পাশের হার ১০০%,জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ জন। হাশিমপুর আলীম মাদ্রাসা থেকে মোট ২০ জন অংশগ্রহণ করে পাশ করেছে ১৮ জন ও পাশের হার ৯০%। বদরপুর আদমিয়া ফাজিল মাদ্রাসা থেকে মোট ৩৭ জন অংশগ্রহণ করে পাশ করেছে ৩৭ জন ও পাশের হার ১০০%,জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ জন। সাড়ে পাঁচআনী হোসাইনিয়া ফাজিল মাদ্রাসা থেকে মোট ৫২ জন অংশগ্রহণ করে পাশ করেছে ৫২ জন ও পাশের হার ১০০%। লবাইরকান্দি আলআমিন আলীম মাদ্রাসা থেকে মোট ২১ জন অংশগ্রহণ করে পাশ করেছে ২১ জন ও পাশের হার ১০০%।
মতলব দক্ষিণে এইচএসসি ও আলিমে এ প্লাস ৯২ জন, পাশের হার ৯৪.৬৭% ও ৯৯.২৫%
মতলব দক্ষিণ প্রতিনিধি
চলতি বছরের এইচএসসি ও আলিম পরীক্ষায় মতলব দক্ষিণ উপজেলার ৮১ জন জিপিএ -৫ পেয়েছে। তন্মোধ্যে এইচএসসিতে ৮১ জন এবং আলিমে ১১ জন।উপজেলার ছয়টি উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে ২০২১ সালের এইচএসসি পরীক্ষায় ১ হাজার ২ শত ৭৭ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে পাস করেছে ১ হাজার ২ শত নয় জন। যার মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৮১ জন। পাশের হার ৯৪.৬৭%। আলিম পরীক্ষায় সাতটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে ২ শত ৬৯ জন পরিক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ২শত ৬৭ জন। যার মধ্যে জিপিএ ৫ পেয়েছে ১১ জন পাশের হার ৯৯.২৫%। এছাড়াও এইচএসসি ভোকেশনাল পরীক্ষায় ৮৯ জন পরীক্ষা দিয়ে সকলেই পাস করলেও কোনো জিপিএ ৫ নেই।
ফলাফল থেকে জানা যায়, মতলব সরকারি ডিগ্রী কলেজ থেকে এইচএসসি পরীক্ষায় ৩ শত ৮৩ জন অংশগ্রহণ করে ৩ শত ৫৯ জন পাশ করে। জিপিএ ৫ পেয়েছে ৪৩ জন, পাশের হার ৯৩.৭৩%। রয়মনেন নেছা মহিলা ডিগ্রি কলেজ থেকে ২শত ৫২ জন পরীক্ষা দিয়ে পাস করেছে ২ শত ৪৪ জন। জিপিএ ৫ পেয়েছে ৫ জন, পাশের হার ৯৬.৮২%। নারায়নপুর ডিগ্রি কলেজ থেকে ২শত ৬৬ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ২শত ৪২ জন। জিপিএ ৫ পেয়েছে ১০ জন, পাশের হার ৯০.৯৭%। মুন্সিরহাট কলেজ থেকে ২শত ২২ জন পরীক্ষা দিয়ে পাস করেছে ২ শত ১০ জন। জিপিএ ৫ পেয়েছে ৯ জন, পাশের হার ৯৪.৫৯%। ড. এম শামসুল হক মডেল কলেজ থেকে ৩৬ জন পরীক্ষা দিয়ে সকলেই পাস করেছে, জিপিএ ৫ পেয়েছে দুইজন। কাচিয়ারা স্কুল এন্ড কলেজ থেকে ১শত ১৮ জন পরীক্ষা দিয়ে সকলেই পাস করেছে। জিপিএ ৫ পেয়েছে ১২ জন।
আলিম পরীক্ষায় মতলব দারুল উলুম ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসা থেকে ৬৪ জন পরীক্ষা দিয়ে সকলেই পাস করেছে। জিপিএ ৫ পেয়েছে চারজন। কালিয়াইশ ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসা থেকে ২৪ জন, নন্দিখোলা ফাজিল ডিগ্রি মাদ্রাসা থেকে ১১ জন এবং নওগাঁও রাশেদিয়া ফাজিল মাদ্রাসা থেকে ২০ জন পরীক্ষা দিয়েছে সকলেই পাস করেছে। ঘিলাতলী সামাদিয়া ফাজিল মাদ্রাসা থেকে ৫৫ জন পরীক্ষা দিয়ে সকলেই পাশ করেছে এবং জিপিএ ৫ পেয়েছে এক জন। খর্গপুর ফাজিল মাদ্রাসা থেকে ৩৯ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৩৮ জন। জিপিএ ৫ পেয়েছে চারজন, পাশের হার ৯৭.৪৩%। কাচিয়ারা জামালিয়া আলিম মাদ্রাসা থেকে পরীক্ষা দিয়েছে ৫৬ জন। পাশ করেছে ৫৫ জন, জিপিএ ৫ পেয়েছে দুইজন, পাশের হার ৯৮.২১%।
হাজীগঞ্জে এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফলে জিপিএ-পেয়েছে ৪শ’ ৫ জন, পাশের হার ৯৭.১২%
হাজীগঞ্জ প্রতিনিধি
সংক্ষিপ্ত সিলেবাসে হওয়া এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে অনুষ্ঠিত হাজীগঞ্জে গড় পাশের হার ৯৭ দশমিক ১২ শতাংশ শিক্ষার্থী পাস করেছে।
এ ছাড়া বরাবরের মতো এবারও হাজীগঞ্জ উপজেলার ৯টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্য থেকে জিপিএ-৫ প্রাপ্তির দিক থেকে হাজীগঞ্জ মডেল সরকারী কলেজ ও হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ এগিয়ে আছে। এ উপজেলা জিপিএ-৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীর সংখ্যা ৪০৫ জন। সেইসঙ্গে ৯টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্য মাত্র ২টি প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী শতভাগ পাস করেছে ।
জানা যায়, হাজীগঞ্জ মডেল সরকারী কলেজ থেকে ১১ শত ৭৫ জন পরীক্ষার্থীর মধ্য পাশ করেছে ১১’শ ৩১ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছে ২০১ জন, গড় পাশের হার ৯৬.২৩%, হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ থেকে ৮শ’৪২ জন পরীক্ষার্থীর মধ্য পাশ করেছে ৮শ’১৬ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৩৬ জন, গড় পাশের হার ৯৮.৩৭%, নাসিরকোট শহীদ স্মৃতি ডিগ্রি কলেজ থেকে ২৩০ জন পরীক্ষার্থীর মধ্য পাশ করেছে ২২৯ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪ জন, গড় পাশের হার ৯৯.৫৭%, বলাখাল মুকবুল আহমেদ ডিগ্রি কলেজ থেকে ১৫০ জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহন করে পাশ করেছে ১৪৫ জন, এই প্রতিষ্ঠানের জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার্থীর সংখ্যা ৩ জন, গড় পাশের হার ৯৬.৬৭%, দেশগাঁও ডিগ্রি কলেজ থেকে ১২৯ জন পরীক্ষার্থীর বিপরীতে পাশ করেছে ১২৬ জন, জিপিএ এর সংখ্যা ১৮ জন, গড় পাশেই হার ৯৭.৬৭%, ধড্ডা মোফাজ্জেম হোসেন চৌধুরী ডিগ্রি কলেজের ১৮৫ জন পরীক্ষার্থীর মাঝে পাশ করেছে ১৮৫ জন, জিপিএ-৫ এর সংখ্যা ৩৩ জন, গড় পাশের হার ১০০%, কাকৈরতলা জনতা কলেজ থেকে ১৫৬ জন পরীক্ষার্থী অংশ নিয়ে পাশ করেছে ১৫৬ জন, গড় পাশের হার ১০০%, হাজীগঞ্জ মডেল সরকারী পাইলট হাই স্কুল এন্ড কলেজ থেকে ২৪০ জন শিক্ষার্থী অংশ নিয়ে পাশ করেছে ২৩০ জন, জিপিএ-৫ এর সংখ্যা ২৩০ জন, গড় পাশের হার ৯৫.৮৩% ও হাজীগঞ্জ কমার্স কলেজ থেকে ১৪ জন পরীক্ষার্থী অংশ নিয়ে পাশ করেছেন ১৩ জন এবং জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১ জন, পাশের হার ৯২.৮৬%।
হাইমচরে এইচ এসসি পাসের হার ৯৬.৩৮% ও আলীমে ৯২.৮৫%
মোঃ জাহাঙ্গীর আলম
হাইমচরে ২টি কলেজে ৭২০ জন শিক্ষার্থী কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এইচ এসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে ৬৯৪ জন শিক্ষার্থী পাস করেছেন। পাসের হার হয়েছে ৯৬.৩৮%। জিপিএ -৫ পেয়েছেন ৫৬ জন। ২ টি কলেজের মধ্যে হাইমচর সরকারি কলেজ পাসের হার ৯৭.১৪% এবং মোয়াজ্জেম হোসেন কলেজ পাসের হার ৯২.২০%।
মাদরাসা বোর্ডের অধিনে হাইমচরে ৩টি মাদ্রাসার ১৬৮ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে পাস করেছেন ১৫৬জন। পাসের হার হয়েছে ৯২.৮৫%। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৮ জন।
হাইমচর সরকারি কলেজ থেকে ব্যবসা শিক্ষা শাখায় ২১২ জন শিক্ষার্থী এইচএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে কৃতকার্য হয়েছে ২০৩ জন। পাসের হার ৯৫.৭৫% । জিপিএ -৫ পেয়েছেন ৩জন, মানবিক বিভাগ থেকে ২৬১ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে কৃতকার্য হয়েছে ২৫৫ জন, জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬ জন, পাসের হার ৯৭.৭০%, বিজ্ঞান বিভাগ থেকে ১৪০ জন পরিক্ষায় অংশগ্রহন করে ১৩৬ জন কৃতকার্য হয়েছে, জিপিএ -৫ পেয়েছে ৪৩ জন, পাসের হার ৯৭.১৪%।
মোয়াজ্জেম হোসেন কলেজ থেকে ব্যবসা শিক্ষা শাখায় ৩০ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে কৃতকার্য হয়েছে ২৯জন। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ২জন, পাসের হার ৯৬.৬৬%, মানবিক বিভাগ থেকে ৭৭জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহন করে কৃতকার্য হয়েছেন ৭১ জন। পাশের হার ৯২.২০% জিপিএ ৫ পেয়েছেন ২ জন।
গন্ডামারা এবিএস ফাজিল মাদরাসা থেকে ৪৬ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে পাস করেছেন ৪৪ জন। পাসের হার ৯৫.৬৫%। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৫ জন। কাটাখালি হামিদিয়া মাদরাসা থেকে ৪২জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে পাস করেছেন ৩৯জন। পাসের হার ৯২.৮৫%, জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ জন। আলগীবাজার আলীম মাদরাসা থেকে ৮০ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহন করে ৭৩ জন কৃতকার্য হয়েছেন। পাসের হার ৯১.২৫%, জিপিএ-৫ পেয়েছেন ২জন।
ফরিদগঞ্জে এইচএসসি ও সমমানে জিপিএ ৫ পেয়েছে ২শ ৩৮ জন
জসিম উদ্দিন
চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলায় ৭টি কলেজে এইচএসসি পরীক্ষায় ২১৬ জন ও ২৮টি সিনিয়র মাদ্রাসায় আলিম পরীক্ষায় ১৭জন জিপিএ-৫ পেয়েছে। এইচএসসিতে মোট ২১২০ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিয়েছেন। এদের মধ্যে অকৃতকার্য হয়েছেন ১৩ জন। পাশের হার ৯৯.৩৮ ভাগ। অপরদিকে আলিম পরীক্ষায় ৬৮৮জন অংশ নিয়ে কৃতকার্য ৬৮০ জন , অকৃতকার্য ০৮ জন।
এরমধ্যে ফরিদগঞ্জ বঙ্গবন্ধু ডিগ্রি কলেজে ৩৯, গৃদকালিন্দিয়া হাজেরা হাসমত ডিগ্রি কলেজে- ১০৭, শোল্লা স্কুল এন্ড কলেজে-২৫ , চির্কা চাঁদপুর স্কুল এন্ড কলেজে-০৩, কালির বাজার কলেজে-১১, চান্দ্রা ইমাম আলী স্কুল এন্ড কলেজে-১৭ ও গল্লাক আদর্শ ডিগ্রি কলেজে-১৪ জন জিপি-এ ৫ পেয়েছে।
এদিকে আলিম পরীক্ষায় ৬৮৮জন অংশ নিয়ে জিপিএ -৫ পেয়েছে ১৭জন । এর মধ্যে ফরিদগঞ্জ আলীয়া মাদ্রাসায় ৫ জন, হাঁসা ফাজিল মাদ্রাসায় ৩ জন, পুরান রামপুর আলিম মাদ্রাসায় ৩ জন, রামপুর বাজার ফাজিল মাদ্রাসায় ২ জন, পশ্চিম পোয়া আলিম মাদ্রাসায় ১ জন, ইসলামপুর ফাজিল মাদ্রাসায় ১ জন ও রূপসা আলিম মাদ্রাসায় ২ জন জিপিএ -৫ পেয়েছে।
কচুয়ায় এইচএসসি ও আলিমে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪১৯জন পাসের গড় হার ৯৬.০২%
কচুয়া প্রতিনিধি
চাঁদপুরের কচুয়ায় এইচএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩৯৩জন ও আলিম পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পেয়েছে ২৬জন যার পাসের গড় হার ৯৬.০২%। এইচএসসিতে ২হাজার ৪শ ৮৬ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহন করে ২ হাজার ৪শ ৬৮জন কৃতকার্য হয়। যার পাসের হার ৯৯.২৭%। তন্মধ্যে ড. মনসুরউদ্দীন মহিলা কলেজ,আশেক আলী স্কুল এন্ড কলেজ ও চাঁদপুর এমএ খালেক মেমোরিয়াল স্কুল এন্ড কলেজে শতভাগ পরীক্ষার্থী উত্তীর্ণ হয়েছে। ৮৫জন জিপিএ-৫ পেয়ে দশম বারের মতো উপজেলা পর্যায়ে শীর্ষে স্থানে রয়েছে ড. মনসুরউদ্দীন মহিলা কলেজ। অপর দিকে আলিম পরীক্ষায় ৪৪২জন পরীক্ষার্থী করে ৪৪১জন কৃতকার্য হয়। যার পাসের হার ৯৯.৭৭%। ১৩টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে একটি মাত্র মাদ্রাসা ব্যতীত ১২টি প্রতিষ্ঠানই শতভাগ ফলাফল অর্জন করেছে।
এদিকে পালাখাল রোস্তম আলী ডিগ্রি কলেজে ৪৩১জন পরীক্ষাং অংশগ্রহন করে ৪২৬জন উত্তীর্ণ হয় যার মধ্যে ১২৬জন জিপিএ-৫ পেয়েছে। ভালো ফলাফল করায় স্থানীয়রা অভিনন্দন জানিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.