চাঁদপুরে যানজট নিয়ন্ত্রণে সিএনজি শ্রমিক ইউনিয়নের উদ্যোগ

স্টাফ রিপোটার এবার চাঁদপুরে যানজট নিয়ন্ত্রণে ঈদের ভীড়ে শহরের মোড়ে মোড়ে ট্রাফিক ও স্কাউট সদস্যদের পাশাপাশি সিএনজি অটোরিকসা শ্রমিক ইউনিয়ন ব্যতিক্রমী দায়িত্ব পালন করছেন। এবার শহরেরর যানজট নিয়ন্ত্রন রাখার জন্য কালিবাড়ী মোড়ে পুলিশ বক্সের পশ্চিম পাশে সিএনজি স্টেশন নিধারন করা হয়েছে স্থায়ী ভাবে ।
আসলেই চাঁদপুর শহরে যানজট তীব্র হয়ে ওঠে। এ যানজটের কারণে স্থবির হয়ে পড়ে পুরো শহর। বিভিন্ন উপজেলা, ইউনিয়ন ও শহরতলীর মানুষ শহরের মার্কেটিংসহ বিভিন্ন কাজে ছুটে আসেন।
এ সময়টিতে যানজট নিরসনে বেগ পেতে হয় ট্রাফিক সদস্যদের। ট্রাফিক বিভাগে পর্যাপ্ত সংখ্যক জনবল না থাকায় যানজট নিয়ন্ত্রণ রাখা দিন দিন মারাত্মক কঠিন হয়ে উঠছে। চাঁদপুর জেলা পুলিশ সুপারের নির্দেশে এখন থেকে সিএনজি স্টেশন রেলওয়ে স্টেশনের পাশে বড়স্টেশন রোডে। এই স্থান থেকে এখন থেকে যাত্রী উঠা নামা করতে পারবে এবং জেলার বিভিন্ন স্থানে যেতে পারবে।
ঈদের এ সময়টিতে ট্রাফিক বিভাগকে সহযোগিতায় বিগত কয়েক বছর ধরে স্কাউট সদস্যরা যানবাহন শৃংখলার কাজে সহযোিগতা করে প্রশংসতি হয়েছেন। স্কাউট সদস্যরা সোমবার (২৫ এপ্রিল) থেকে ঈদ শেষেও কয়েকদিন পর্যন্ত এ দায়িত্ব পাল করবে বলে জানাগেছে।
সরেজমিনে মঙ্গলবার শহরের কালিবাড়ি মোড়, শপথ চত্ত্বর মোড়, পালবাজার এলাকা, ছায়াবানী ও চিত্রলেখা মোড়ে সিএনজি যানজট সৃষ্টি করছে রাস্তার পাশে রেখে। এদিকে চাঁদপুর জেলা সিএনজি অটোরিকসা শ্রমিক ইউনিয়ন সভাপতি কাজী শাহরারিয়া ফারুক বলেন, শহরের যানজট নিয়ন্ত্রন রাখার জন্য আমরা চেষ্টা করছি। পুলিশ সুপারের নির্দেশ মতো আমরা কাজ করছি। যানটন নিয়ন্ত্রণে পুলিশের ভুমিকায় কাজ করে যাচ্ছে পাশা পাশি সিএনজি শ্রমিক ইউনিয়ন কাজ করে যাচ্ছি। চাঁদপুর জেলা পুলিশ সুপারের নির্দেশে এখন থেকে সিএনজি স্টেশন রেলওয়ে স্টেশনের পাশে বড়স্টেশন রোডে নির্ধান করে দিয়েছেন। আমাদের শ্রমিক ইউনিয়নের সদস্যরা যাত্রীদের সুবিধার্থে নিরলস কাজ করে যাচ্ছে।
শ্রমিক ইউনিয়নের কাউন্টার থেকে মাইকের মাধ্যমে প্রতিনিয়ত যাত্রীদেরকে নির্দেশনা দিয়ে যাচ্ছে।
তিনি আরো বলেন, পৌরসভা ও প্রশাসনকে সহযোগিতা করার জন্য ও জনগণের সেবার মানঠিকঠাক রাখতে আমরা এ তীব্র তাপদাহের মধ্যেও কস্ট শিকার করে কাজটি কওে যাচ্ছি। ঈদ সামনে তাই রাস্তায় যানবাহন ও মানুষও বেশী। তাই আমাদের কিছু বেগ পেতে হচ্ছে তবে আমরা বসে নেই কাজটি করে যাচ্ছি। ঈদ আসলে শ্রমিক সদস্যরা মাঠে আসাতে তাদের সহযোগিতার জন্য রাস্তায় আমাদের ও যাত্রীদের উপকার হচ্ছে। এটা তাদের ভাল উদ্যোগ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.