চাঁদপুর মেঘনা নদীতে অবাধে মাছের রেনু নিধন

স্টাফ রিপোর্টার চাঁদপুর মেঘনা নদীতে প্রতিদিন শত শত মশারি জালে নিধন হচ্ছে দেশীয় প্রজাতির মাছের রেনু পোনা। এক শ্রেনীর অসাধু জেলে, ব্যবসায়ী ও দাদনদার শীত মৌসুমে দেশীয় প্রজাতির মাছের রেনু নিধন যজ্ঞে মেতে উঠে। তারা এসব পোনা বিক্রি করে সাময়িকভাবে লাভবান হলেও মৎস্য সম্পদের বড় ধরণের ক্ষতি করছে। এসব রেনু পোনা বড় হলে কয়েক শ’ কোটি টাকা বিক্রি করা যেত। কিন্তু অসাধু সংঘবদ্ধ এই সিন্ডিকেট খুবই শক্তিশালী। তারা রাজনৈতিক ও স্থানীয় প্রভাব খাটিয়ে ধ্বংস করছে দেশীয় মাছের বংশবিস্তার।
সম্প্রতি চাঁদপুর শহর ও গ্রামে প্রকাশ্যে বেলে পোনা ও সাগরের পোনা নামে দেশীয় প্রজাতির রেনু পোনা বিক্রি করতে দেখাগেছে। শহরেও প্রকাশ্যে বিক্রি হয়েছে এবং হচ্ছে। এসব রেনুপোনা পদ্মা-মেঘনা নদীর চাঁদপুর নৌ সীমানায় আহরণ থেকে শুরু করে জড়িতদের আইনের আওতায় আনার দাবী দীর্ঘদিনের। সরকারের মৎস্য বিভাগ, গনমাধ্যম ও মৎস্য গবেষকরা এসব বিষয় সব সময়ই জেলেদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন। কিন্তু রেনুপোনা সংরক্ষণে বাস্তব কোন উদ্যোগ চোখে পড়ছে না।
গত কয়েকদিন শহরের ট্রাক রোড, পাল পাড়া শীতলা মন্দির সংলগ্ন মোড়, নতুন বাজার, মিশন রোড, ওয়ারলেছ বাজারে এসব বেলে ও সাগরের পোনা বিক্রি করতে দেখাগেছে। অনেক সচেতন মানুষও এসব পোনা ক্রয় করছেন। বিক্রেতা-ক্রেতা কারো মধ্যেই এই বিষয়ে উপলব্দি নেই।
খোঁজ নিয়ে জানাগেছে, শহরের পুরান বাজার রনাগোয়াল, দোকানঘর ও আশাপাশের এলাকায় এক শ্রেনীর অসাধু ব্যবসায়ী শীত মৌসুমে এই রেনুপোনা নিধন করেন। তাদেরকে আইনের আওতায় আনলে অনেকটা প্রতিরোধ হবে বলে জানালেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.