চাঁদপুর-শরীয়তপুর ফেরি সংকটে দীর্ঘজট

স্টাফ রিপোর্টার: প্রচণ্ড বাতাস ও ফেরি স্বল্পতায় ব্যাহত হচ্ছে শরীয়তপুর-চাঁদপুর নৌপথে যানবাহন পারাপার। যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দেওয়ায় ঘাট থেকে একটি ফেরি সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। মাত্র ৬টি দিয়ে গুরুত্বপূর্ণ এই নৌপথের যানবাহন পারাপার করা হচ্ছে। এতে ধীরগতিতে যানবাহন পারাপার করায় ঘাটে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।
এমন পরিস্থিতিতে নির্ধারিত টার্মিনাল পূর্ণ হয়েও নরসিংহপুর ফেরিঘাট থেকে খায়েরপটি পর্যন্ত সড়কে পারাপারের অপেক্ষায় আটকা পড়েছে সাড়ে ৩ শতাধিক যাত্রী ও পণ্যবাহী যানবাহন।
অগ্রাধিকার ভিত্তিতে যাত্রীবাহী যানবাহন পারাপার করা হলেও ফেরি স্বল্পতায় ঘাটে আটকে আছে কাঁচা ও পচনশীল পণ্যবাহী যানবাহন। দীর্ঘ সময় ঘাটে আটকা থাকায় দুর্ভোগে পড়েছে এই পথে চলাচলকারীরা। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে আরও অন্তত ৩ দিন সময় লাগতে পারে বলে জানিয়েছে ঘাট কর্তৃপক্ষ।
বিআইডব্লিউটিসি ও ঘাট কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা গেছে, চট্টগ্রামের সঙ্গে খুলনা, বরিশাল, বেনাপোল, মোংলাসহ দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলার যাতায়াত সহজ করতে দুই হাজার সালে চালু করা হয় শরীয়তপুর চাঁদপুর ফেরি চলাচল। এই ঘাটে ৭টি ফেরি দিয়ে প্রতিদিন গড়ে ৫ শতাধিক যানবাহন পারাপার হয়। কিন্তু কস্তুরি ফেরির ইঞ্জিনে যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দেওয়ায় ঘাট থেকে গত বৃহস্পতিবার মেরামতের জন্য নারায়ণগঞ্জ ডকে একটি ফেরি সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। ফলে মাত্র ৬টি দিয়ে গুরুত্বপূর্ণ এই নৌপথের যানবাহন পারাপার হচ্ছে।
ফলে নির্ধারিত ফেরির চেয়ে ১টি কম ফেরি দিয়ে যানবাহন পারাপার করাচ্ছে। এতে ঘাটে তুলনামূলক কম যানবাহন পারাপার করা হচ্ছে। তাছাড়া নদীতে তীব্র বাতাস থাকায় মেঘনা নদী পারাপারে প্রতি ট্রিপে অতিরিক্ত ২০ মিনিট করে সময় বেশি লাগছে। তাই ফেরির ট্রিপ সংখ্যাও কিছুটা কমে গেছে। ফলে যানবাহন পারাপারের সংখ্যা কমে যাওয়ায় ঘাটে যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। সড়কে ফেরি পারাপারের অপেক্ষায় থাকায় যানবাহনের দীর্ঘ সারি সৃষ্টি হয়। দীর্ঘ সময় ঘাটে আটকা থেকে সীমাহীন দুর্ভোগে পড়েছেন যাত্রী, চালক ও ব্যবসায়ীরা।
ফরিদপুর থেকে পেঁয়াজ নিয়ে চট্টগ্রাম যাওয়ার পথে শুক্রবার থেকে ঘাটে আটকা আছেন ট্রাকচালক মনির হোসেন তিনি জানান, গত শুক্রবার রাতে চট্টগ্রাম পৌঁছানোর কথা ছিল। ফেরিঘাটে এসে শনিবার (২৬ মার্চ) থেকে আটকা আছি। কখন ফেরিতে উঠতে পারবো তাও নিশ্চিত করে বলতে পারছি না। এদিকে তীব্র গরমে পেঁয়াজে পচন ধরতে শুরু করেছে। পেঁয়াজ থেকে পানি বের হচ্ছে। রাতের মধ্যে ফেরি পার হতে না পারলে সব পেঁয়াজ নষ্ট হয়ে যাবে।
ফেরি করবীর মাস্টার ইমরান হোসেন জানান, শুক্রবার থেকে মাঝ নদীতে তীব্র বাতাসের কারণে নদী পারাপারে অন্তত ২০ মিনিট সময় বেশি লাগছে। এতে করে ফেরির ট্রিপ সংখ্যা কমে গেছে। এ ছাড়া একটি ফেরি বিকল থাকায় যানবাহন পারাপারে কিছুটা বেগ পেতে হচ্ছে।
বিআইডব্লিউটিসির নরসিংহপুর ফেরিঘাটের ব্যবস্থাপক আব্দুল মোমেন বলেন, এক সপ্তাহ ধরে এই নৌপথে যানবাহনের চাপ ব্যাপকহারে বৃদ্ধি পেয়েছে। হঠাৎ করে ফেরি কস্তুরিতে যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দেওয়ায় মেরামতের জন্য ডকে পাঠানো হয়েছে। তা ছাড়া বৈরী আবহাওয়ার কারণে ফেরি পারাপারে সময়ও লাগছে বেশি। ফলে যানবাহন পারাপারে কিছুটা সমস্যা হওয়ায় ঘাটে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। আশা করি আগামী ২ থেকে ৩ দিনের মধ্যে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.