চাঁদপুরে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে চলছে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা

করোনা সংক্রমনের কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার পর সরকারি নির্দেশনায় আগামি ১২ সেপ্টেম্বর থেকে খুলছে স্কুল-কলেজ। তাই চাঁদপুর জেলার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে চলছে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার কাজ। সরকার ঘোষিত ১৯ দফা মেনে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি নিশ্চিতকরণ এবং পাঠদানের প্রয়োজনীয় কার্যক্রম বাস্তবায়নে ব্যস্ত সময় পার করছেন শিক্ষক-কর্মচারীরা। দায়িত্বশীলরা অনলাইন এবং অফলাইনে প্রস্তুতির সার্বিক কার্যক্রম তদারকি করছেন।

সরকারি ঘোষণার পর থেকেই চাঁদপুর শহরের ঐতিহ্যবাহী চাঁদপুর হাসান আলী সরকারি মডেল প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ বিভিন্ন স্কুল খোলার প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। স্কুলের প্রধান শিক্ষিক ও সহকারি শিক্ষিকারা ব্যস্ত সময় পার করছেন স্কুলে বসে। ওদিকে শ্রেণিকক্ষসহ পুরো স্কুল পরিচ্ছন্ন করা হচ্ছে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সীমানা প্রাচীরের ভেতর ও বাহির আরো পরিষ্কার করা হচ্ছে।

চাঁদপুর সরকারি কলেজ, মহিলা কলেজসহ কয়েকটি কলেজ ঘুরে দেখা যায়, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শ্রেণিকক্ষ ও ভবনে ধোয়া-মোছার কাজে ব্যস্ত পরিচ্ছন্নতাকর্মীরা। শিক্ষকরা দফায় দফায় মিটিং করছেন সরকারি নির্দেশনা পুরোপুরি মেনে কীভাবে পাঠদান শুরু করা যায়। কলেজে আগতদের মাস্ক পরিধান, হ্যান্ড স্যানিটাইজিং নিশ্চিত করার কথা বলছে কর্তৃপক্ষ। এছাড়া কলেজের একটি কক্ষকে আইসোলেশন সেন্টার হিসেবে ব্যবহারের উপযোগী করে তোলা হচ্ছে।

জেলা শিক্ষা অফিসার মো. গিয়াস উদ্দিন পাটওয়ারী বলেন, জেলায় মাধ্যমিক স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসা আছে ৫৩৭টি। এর মধ্যে কলেজ ৩৯টি, স্কুল অ্যান্ড কলেজ ১৭টি, মাধ্যমিক স্কুল ২৮০টি, মাদ্রাসা ২০১টি, কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ৪টি। এসব প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থী তিন লাখেরও বেশি। এরমধ্যে এক লাখ ২৪ হাজার ছাত্র এবং ছাত্রী রয়েছে এক লাখ ৭৫ হাজার। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে এখন পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার কাজ চলছে। সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী পাঠদান শুরু করতে আমাদের প্রস্তুতি আছে।

স্টাফ রিপোর্টার

Leave a Reply

Your email address will not be published.