চেয়ারম্যানগণকে সততা ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করতে হবে : শিক্ষামন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার চাঁদপুর কচুয়া, ফরিদগঞ্জ ও হাইমচর উপজেলার ২৯ ইউপি চেয়ারম্যানগন শপত নিয়েছেন, বুধবার বেলা ১১টায় প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে তাদের শপত বাক্য পাঠ করান জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি এমপি। অনুষ্ঠানে ভার্সালী হিসেবে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন কচুয়া -১ আসনের এমপি ড.মহিউদ্দিন খান আলমগীর এমপি, চাঁদপুর -৪ আসনের এমপি মোহাম্মদ শফিকুর রহমান এমপি, পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ পিপিএম বার।
এ সময় প্রধান অতিথি তার বক্তব্য বলেন, ইউনিয়ন পরিষদ এখন উন্নয়নের কেন্দ্র বিন্দু। তাই নব নির্বাচিত চেয়ারম্যানগন সততা ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করতে হবে। জনপ্রতিনিধিরা সব সময় চাফের মুখে থাকে, জনগনকে নিয়ে জনপ্রতিনিধিরা কাজ করতে হচ্ছে, জনগনের সাথে জনপ্রতিনিধিরা আছে এবং, থাকবো। রাষ্ট্রের সকল কাজ ইউনিয়ন পরিষদে হচ্ছে, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, নাগরিকের সকল সুবিধা ইউনিয়নেই হচ্ছে, তাই জনগনের সন্তুষ্ঠের জন্য কাজ করতে হবে।
তিনি বলেন বর্তমান সরকারের সময় প্রতিটি ইউনিয়নে সুন্দর ও স্বচ্চ নির্বাচন হয়েছে, জনগনের প্রত্যাক্ষ ভোটে চেয়ারম্যান ও মেম্বারগন নির্বাচন হয়েছে, তাই জনগনের আশার আলো হয়েই সকলকে কাজ করতে হবে।
তিনি বলেন চেয়ারম্যানগন সকলের জনপ্রতিনিধি, তাই কে কোন দলের, কে ভোট দেয়না, তা না ভেবে সকলের জন্য কাজ করতে হবে, শপতের পর থেকেই চেয়ারম্যানগন আপনারা আপনাদের দায়িত্ব নিতে পারবেন, তবে মেম্বারদের শপতের পর পুরো পরিষদ এক সাথে দায়িত্ব নিলে ভাল হবে, বর্তমান সরকার মহিলা সদস্যদেরকে ও সমান ভাবে মূল্যায়ন করার নির্দেশনা দিয়েছে , প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নারীদের ক্ষমতায়নের কথা বলেছে। তাই তাদেরকে ও যথা সমান মূল্যায়ন করে পরিষদের সকল কার্যক্রম করতে হবে।
তিনি বলেন ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম্য আদালত শক্তিশালী করতে হবে, গ্রাম্য আদালতের অনেক ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে। গ্রাম্য আদালতেন মামলা গুলো ন্যায় ভাবে সমাধারন করতে হবে। কোন প্রকার চাফ কিংবা হিংসাত্বক পরায়ণ নিয়ে বিচার কার্যক্রম করা যাবেনা।ইউনিয়ন পরিষদের কার্যক্রম সঠিক ভাবে করতে হবে, গ্রাম্য আদালতকে সঠিক ভাবে পরিচালনা করতে হবে। পরিষদে নাগরিকের
ওয়ারিশান ও নাগরিক সনদ সঠিক ভাবে করতে হবে, ভুয়া ওয়ারিশান দিয়ে কাউকে পরিবারের সম্পত্তি থেকে বঞ্চিত করা যাবেনা, নাগরিকের তথ্য সঠিক ভাবে নিতে হবে। ইউনিয়নের ভিজিএফ, ভিজিডি, প্রতিবন্ধী, বয়স্কসহ সকল প্রকার কার্ড সঠিক লোকদের দিতে হবে, সরকারের উন্নয়নগুলো জনসমুক্ষে তুলে ধরতে হবে, ইউনিয়নের
ডিজিটাল সেন্টারের সকল সেবাগুলো সঠিক ভাবে দিতে হবে, সকল সেবাগুলো যথাযত ভাবে পালন করতে হবে, সবাই যদি সততা ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করলে আমরা একটা সুন্দর চাঁদপুর সবাইকে উপহার দিতে পারবো।
অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) দাউস হোসেন চৌধুরীর সভাপতিত্ব সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে শপথ গ্রহন করেন ফরিদগঞ্জ উপজেলার বালিথুবা পশ্চিম ইউনিয়নের জসিম উদ্দিন স্বপন মিয়াজী, পূর্ব ইউনিয়নের এইচ এম হারুন-অর রশীদ, সুবিদপুর পূব ইউনিয়নের মোঃ বেলায়েত হোসেন ও পশ্চিম ইউনিয়নের মোঃ মহসিন হোসেন, গুপ্টি পূর্ব ইউনিয়নের শাহাজান পাটওয়ারী ও পশ্চিম ইউনিয়নের মোঃ বুলবুল আহম্মেদ, পাইকপাড়া উত্তর আবুতাহের আবু পাটওয়ারী, গোবিন্দপুর উত্তর মোহাম্মদ শাহ্ আলম শেখ ও দক্ষিণ ইউনিয়নের মোঃ আলাউদ্দিন ভূঁইয়া, চরদুখিয়া পূর্ব ইউনিয়নের মোঃ মাহমুদুল হাসান মিরাজ ও পশ্চিম ইউনিয়নের মোঃ শাহ্জাহান মাস্টার, রুপসা উত্তর ইউনিয়নের কাউসারউল আলম কামরুল ও দক্ষিণ ইউনিয়নের মোঃ শরীফ হোসেন খান, হাইমচর উপজেলার আলগী উত্তর ইউপির মো. আতিকুর রহমান পাটোয়ারী, আলগী দক্ষিণ ইউপির সরদার আব্দুল জলিল, নীলকমল ইউপির সউদ আল নাছের ও হাইমচর ইউপির জুলফিকার আলী জুলহাস সরকার।

চলতি মাসেই সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হবে: শিক্ষামন্ত্রী

চলতি মাসেই দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। বুধবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে চাঁদপুর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত নবনির্বাচিত চেয়ারম্যানদের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা জানান।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আজ রাতে জাতীয় পরামর্শ কমিটির সঙ্গে সভা আছে। আমরা করোনার অবস্থা পর্যালোচনা করে একটি সিদ্ধান্ত নিতে পারবো। এ বিষয় নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলাপ আলোচনা করা হবে। এরপর শিগগির আমরা মনে করছি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিতে পারবো। নির্ধারিত তারিখ বলতে না পারলেও আমরা আশা করছি চলতি মাসেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হবে।

শ্রেণিকক্ষে পাঠদানের বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় যেভাবে যতটুকু ক্লাস নেওয়া সম্ভব আমরা ততটুকু করবো। যত দ্রুত করোনা পরিস্থিতি থেকে আমরা স্বাভাবিকে যেতে পারবো তত দ্রুত সব ক্লাস স্বাভাবিকভাবে শুরু হয়ে যাবে।
দিন দিন শিক্ষার গুণগত মানোন্নয়ন বাড়ানো হচ্ছে জানিয়ে ডা. দীপু মনি বলেন, শ্রেণিকক্ষ খুলে দেওয়া হলেই নতুন কারিকুলাম ট্রাইআউটে যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.