চাঁদপুরে টিকার উৎসবে ভাটা ফিরিয়ে আনা জরুরি

চাঁদপুরে করোনার টিকা সংগ্রহ করে এর প্রয়োগ কার্যক্রম প্রায় উৎসবে রূপ নিয়েছিল। কয়েক ধাপে এটি বন্ধ হওয়ায় এ উৎসবে কিছুটা ভাটা পড়েছে। বিশেষ করে গত ৩০ আগস্ট থেকে টিকা কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়।

তবে গতকাল চাঁদপুর সিভিল সার্জন কার্যালয়ে ১ লাখ ৫ হাজার ডোজ টিকা এসে পৌঁছেছে। এতে করে টানা ৬ দিন বন্ধ থাকার পর ৫ সেপ্টেম্বর রোববার সকাল থেকে চাঁদপুরে পুনারায় শুরু হতে যাচ্ছে টিকা প্রদান কর্মসূচি। চাঁদপুর সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ সাখাওয়াত উল্লাহ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে এ উৎসবের কয়েক মাসে চাঁদপুরে উচ্চবিত্ত ও সচেতনদের অনেকেই টিকার আওতায় চলে আসছে। প্রচারণা পাশাপাশি পারস্পরিক যোগাযোগে টিকা নিতে আগ্রহীর সংখ্যা বাড়ছে।

সারাদেশের ন্যায় চাঁদপুরেও টিকা নিয়ে এক শ্রেণির মানুষের মধ্যে শঙ্কা-বিভ্রান্তি ছিল। শেষ পর্যন্ত মানুষ এসব আমলে রাখেনি। করোনার টিকাদান কর্মসূচির মতো এতবড় কর্মযজ্ঞ সফলভাবে সম্পন্ন করতে হলে চাঁদপুরে স্বাস্থ্য বিভাগকে সময়মতো টিকা সংগ্রহে রাখার বিষয়ে আরও বেশি তৎপর হওয়া জরুরি।

এখন পর্যন্ত যারা টিকা নিয়েছেন তাদের বেশিরভাগই সমাজের উচ্চ ও মধ্য শ্রেণির মানুষ। এর নিচের পর্যায়ের মানুষ এখনও টিকার নাগাল পাননি। কারণ, নিবন্ধন প্রক্রিয়ায় চাঁদপুরে গ্রামাঞ্চল ও চরাঞ্চলের মানুষের সংযুক্তি এখনও সেভাবে ঘটেনি। আবার কোনো কোনো ক্ষেত্রে কেউ কেউ নিবন্ধন করে তাদের টিকা গ্রহণের নির্ধারিত তারিখের ম্যাসেজ পাননি বা পেলেও অনেক ম্যাসেজের ভিড়ে সেটি হারিয়ে ফেলেছে। কেউ আবার টিকা রেজিস্ট্রেশন করার পর প্রিন্ট কপি হারিয়ে ফেলেছে। এতে করে একটি ভুল ধারণা সৃষ্টি হয়েছে যে, এগুলো হারিয়ে গেলে টিকা দেয়া যাবে না।

তবে সরকার নিবন্ধন প্রক্রিয়া আরও সহজ করার পাশাপাশি টিকা গ্রহণের ক্ষেত্রে ব্যবস্থাপনা আরো সুচারু করা জরুরি।

কাজী মোহাম্মদ ইব্রাহীম জুয়েল

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *