ডায়রিয়া প্রতিরোধে সচেতনতা জরুরী

কাজী মোহাম্মদ ইব্রাহীম জুয়েল সম্প্রতি সারাদেশের ন্যায় চাঁদপুরেও বেড়েছে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। আইসিসিডিআরবি হাসপাতালের অবস্থা অত্যন্ত ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে বলেই প্রতীয়মান হয়। পানি বাহিত এই রোগের প্রাদুর্ভাব সারা বছর থাকলেও বর্তমানে যেভাবে সংক্রমন হচ্ছে তাতে শঙ্কার সৃষ্টি হয়েছে বৈকী। দায়িত্বশীল মহল বলছে বিশুদ্ধ পানির অভাবেই এই রোগের প্রাদুর্ভাব হয়েছে। তবে এই কথাটি ঢাকার মতো ঘনবসতিপূর্ণ একটি স্থানের বাস্তবতার সাথে যথেষ্ট মিল রয়েছে। কিন্তু সারা দেশেই কি বিশুদ্ধ পানির অভাব রয়েছে? নাকি এটি একটি ছোঁয়াচে রোগ হিসেবে যে কোন কারণেই ছড়িয়ে পড়তে পারে ?
যদি তাই হয়ে থাকে তাহলে শুধু বিশুদ্ধ পানির অভাবকে দায়ী না করে ডায়রিয়া প্রতিরোধে জরুরী পদক্ষেপ গ্রহণ করা এখন সরকারের জন্য অনিবার্য হয়ে পড়েছে। যেহেতু গতকালের সংবাদে দেখা যায় ঢাকায় হাসপাতালে পৌঁছানোর আগেই প্রায় ডায়রিয়া রোগীর মৃত্যু হয়েছে। যা অত্যন্ত উদ্বেগের বিষয়ই বটে। স্বাস্থ্যবিভাগকে এর জন্য যথেষ্ট নড়েচড়ে বসার সময় হয়েছে। সারা দেশে জরুরী অবস্থা জারি করে ডায়রিয়া মোকাবেলায় যথেষ্ট উদ্যোগ গ্রহণ করা দরকার। তছাড়া বাড়ী বাড়ী স্বচেতনতার জন্য স্বাস্থ্যকর্মীদেরকে টিকা, অথবা পুষ্টি কার্যক্রমের মতো ছড়িয়ে দেয়া প্রয়োজন। আমরা দেখতে পাচ্ছি সরকার এখনো ডায়রিয়ার বিস্তার রোধে কার্যকর কোন পদক্ষেপ নিচ্ছে না। শুধু সবাই নিজ নিজ অবস্থান থেকে শোকতাপ ছাড়া দৃশ্যমান কোন ভূমিকা নিচ্ছে না। তাই সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগের উচিৎ ডায়রিয়া নিয়ন্ত্রনে অবিলম্বে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করা। এরপাশাপাশি সকল নাগরিকে সচেতন হওয়ার জন্য আহ্বান জানাচ্ছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.