সিনেমায় আগ্রহ ছিল না, তিনি হয়েছেন শীর্ষ নায়িকা

বাবা রাম মুখার্জি ছিলেন একজন চলচ্চিত্র পরিচালক। রানীর মা কৃষ্ণা মুখার্জি ছিলেন প্লেব্যাক গায়িকা। বড় ভাই রাজা মুখার্জি প্রযোজক ও পরিচালক। জনপ্রিয় ভারতীয় বাঙালি অভিনেত্রী দেবশ্রী রায় রানীর খালা। বলিউড তারকা কাজল তাঁর দূর সম্পর্কের বোন। যাঁর কথা বলছি, তিনি জনপ্রিয় অভিনেত্রী রানী মুখার্জি। ১৯৭৮ সালের ২১ মার্চ মুম্বাইয়ে জন্মগ্রহণ করেছিলেন তিনি। আজ তাঁর ৪৪তম জন্মদিন।
পরিবারের অনেকেই যেখানে সিনেমার সঙ্গে যুক্ত, সেখানে রানী মুখার্জির সিনেমায় আসাটা স্বাভাবিকই ছিল। কিন্তু সিনেমায় নাকি তাঁর আগ্রহ ছিল না। তবে সময়ের আবর্তনে তিনি হয়ে গেলেন অভিনেত্রী। আর এই পরিচয়েই তিনি ছাড়িয়ে গেলেন পরিবারের অন্য সবাইকে।

সিনেমায় রানী মুখার্জির পথচলা শুরু হয় বাংলা সিনেমা ‘বিয়ের ফুল’–এ অভিনয়ের মধ্য দিয়ে। ১৯৯৬ সালের সিনেমাটির পরিচালক ছিলেন তাঁর বাবা রাম মুখার্জি। এরপরের বছর মায়ের অনুরোধে ‘রাজা কি আয়েগি বারাত’ সিনেমার মাধ্যমে অভিষেক হয় বলিউডে। ১৯৯৮ সালে আমির খানের সঙ্গে ‘গোলাম’ সিনেমায় অভিনয় করেন তিনি। একই বছর শাহরুখ খানের সঙ্গে ‘কুছ কুছ হোতা হ্যায়’ সিনেমায় অভিনয় করে তুমুল জনপ্রিয়তা পেয়ে যান। এরপর বলিউডের দুনিয়ায় একের পর এক হিট সিনেমা করে গেছেন তিনি।

সিনেমায়-আগ্রহ-ছিল-না-তিনি-হয়েছেন-শীর্ষ-নায়িকা

তাঁর অভিনীত সিনেমাগুলোর মধ্যে ‘হার দিল জো পেয়ার কারেগা’, ‘কাহি পেয়ার না হো জায়ে’, ‘চোরি চোরি চুপকে চুপকে’, ‘নায়ক: দ্য রিয়েল হিরো’, ‘কাভি খুশি কাভি গাম’, ‘পেয়ার দিওয়ানা হোতা হ্যায়’, ‘মুঝসে দোস্তি করোগি’, ‘সাথিয়া’, ‘চালো ইশক লড়াই’, ‘চালতে চালতে’, ‘চোরি চোরি’, ‘কাল হো না হো’, ‘কাভি আলভিদা না কেহনা’, ‘মারদানি’, হিচকি’ ও ‘মারদানি টু’ অন্যতম।

পরবর্তী সিনেমা মুক্তির জন্য তৈরি রানি মুখার্জি। তাঁর অভিনীত সিনেমা ‘মিসেস চ্যাটার্জি ভার্সেস নরওয়ে’ মুক্তির জন্য ২০২২ সালের ২০ মে নির্দিষ্ট করা হয়েছে। ছবিটি পরিচালনা করছেন বলিউডের নারী পরিচালক অসিমা ছিব্বর। এই সিনেমা নির্মাণ হয়েছে সত্য ঘটনা অবলম্বনে। ২০১১ সালে নরওয়েতে এক ভারতীয় দম্পতির সন্তানকে তাদের থেকে আলাদা করে দিয়েছিল নরওয়ের ওয়েলফেয়ার সার্ভিস।

সেই বিতর্কিত ঘটনাকে কেন্দ্র করেই তৈরি হয়েছে ‘মিসেস চ্যাটার্জি ভার্সেস নরওয়ে’র স্ক্রিপ্ট। সন্তানকে ফিরে পাওয়ার জন্য এক মায়ের সংগ্রামই এই ছবির মূল বিষয়।
সিনেমায় ভালো অভিনয়ের স্বীকৃতি হিসেবে রানী মুখার্জি ক্যারিয়ারে বহু পুরস্কার-সম্মাননা পেয়েছেন। এর মধ্যে সাতবার ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ড, তিনবার আইফা অ্যাওয়ার্ড, সাতবার স্ক্রিন অ্যাওয়ার্ড, চারবার জি সিনে অ্যাওয়ার্ড অন্যতম।

Leave a Reply

Your email address will not be published.