চাঁদপুরে দর্শনীয় স্থানের রক্ষণাবেক্ষণ জরুরি

মেঘনা-ডাকাতিয়া আর ধনাগোদা নদীর জলধারায় বিধৌত দেশের অন্যতম প্রাচীন জনপদ চাঁদপুর। মেঘনা কন্যা চাঁদপুরকে নিয়ে অনেক কথা হয়েছে। কেউ বলেন,‘রূপসী চাঁদপুর’ কেউ বলেন, ‘ইলিশের দেশ চাঁদপুর’ ব্র্যান্ডিং নাম ‘ইলিশের বাড়ি চাঁদপুর’।

চাঁদপুরের আনাচে-কানাচে ছড়িয়ে রয়েছে হাজার হাজার প্রত্নসম্পদ। মেহের কালীবাড়ি, হযরত শাহরাস্তি ও তার দরগা, পঞ্চদশ শতকের পর্তুগীজ দুর্গ, ঐতিহ্যবাহী একটি মোঘল গ্রাম অলিপুর ও দুটি মসজিদ-স্থাপত্য শৈলীর অনুপম নিদর্শন, লোহাগড়া মঠ, হাজীগঞ্জ ঐতিহাসিক বড় মসজিদ, মৎস্য গবেষণা কেন্দ্র, পদ্মা-মেঘনা মিলনস্থল, শ্রী শ্রী জগন্নাথ মন্দির, মনমুড়া, সাহার পাড়ের দিঘি, উজানী বখতিয়ার খাঁ মসজিদ, নাটেশ্বর রায়ের দিঘি, কড়ইতলী জমিদার বাড়ি, সাহাপুর রাজবাড়ি, কাশিমপুর রাজবাড়ি চাঁদপুর জেলার দর্শনীয় স্থানগুলোর মধ্যে অন্যতম।

কিন্তু এসব স্থানগুলোর মধ্যে চাঁদপুর বড় স্টেশন মোলহেড ছাড়া কোনটিই রক্ষণাবেক্ষণে সরকারি ব্যবস্থাপনা লক্ষ্য করা যায়নি। বিষয়টি ভ্রমণ পিয়াসু মানুষদের জন্যে কিছুটা হলেও হতাশাজনক। ব্র্যান্ডিং জেলা ইলিশের বাড়ি চাঁদপুরের প্রচার-প্রচারণায় একবার উদ্যোগ নেয়া হলেও পরবর্তী আর কোনো তৎপরতা লক্ষ্য করা যায়নি।

আমাদের আহবান থাকবে চাঁদপুর জেলা প্রশাসন বিষয়টি গুরুত্বের সাথে বিবেচনায় নিয়ে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতায় এসব দর্শনীয় স্থানগুলো রক্ষণাবেক্ষণে এগিয়ে আসবে।

কাজী মোহাম্মদ ইব্রাহীম জুয়েল

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *