নারায়নগঞ্জের ৫ রুটে ছোট লঞ্চ চলাচল শুরু

সময় ডেস্ক দীর্ঘ এক মাস পর নারায়ণগঞ্জ থেকে পাঁচটি রুটে ১৮টি ছোট লঞ্চ চলাচল শুরু করেছে। রোববার (২৪ এপ্রিল) বন্ধ হয়ে যাওয়া লঞ্চ চালুর অনুমতি দিয়েছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)।
বিআইডব্লিউটিএ সুত্রে জানা গেছে, নারায়ণগঞ্জ-চাঁদপুর, নারায়ণগঞ্জ-মুন্সীগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ-রামচন্দ্রপুর, নারায়ণগঞ্জ-নড়িয়া, নারায়ণগঞ্জ-মতলব এ পাঁচটি রুটে ঈদ ও যাত্রীদের কথা বিবেচনা করে ১৮টি লঞ্চ চলাচলের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এ রুটে মোট চলাচলকারী লঞ্চের সংখ্যা ৭০টি।

বিআইডব্লিউটিএ’র নারায়ণগঞ্জ নদীবন্দরের উপ-পরিচালক (নৌ-নিরাপত্তা ও ট্রাফিক) বাবু লাল বৈদ্য জানান, নারায়ণগঞ্জের পাঁচটি রুটে মোট ১৮টি লঞ্চ চালুর অনুমতি দেওয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে লঞ্চ চলাচল শুরু করেছে। অনুমতি দেওয়া লঞ্চগুলোকে এক বছরের মধ্যে আপার ডেক করার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। আর বাকি লঞ্চের অনুমতি দেওয়া হয়নি।

বিআইডব্লিউটিএ’র নারায়ণগঞ্জ নদীবন্দরের যুগ্ম পরিচালক মাসুদ কামাল বলেন, আজ থেকে নারায়ণগঞ্জের পাঁচটি রুটে লঞ্চ চালুর অনুমতি দেওয়া হয়েছে।
তবে সবকটি লঞ্চের অনুমতি না দেওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-চলাচল যাত্রী পরিবহন সংস্থা নারায়ণগঞ্জ জোনের সভাপতি মো. বদিউজ্জামান বাদল। তিনি বলেন, ৭০টি লঞ্চের মধ্যে মাত্র ১৮টি লঞ্চ চালুর অনুমতি দেওয়া হয়েছে। বাকি লঞ্চগুলো চালুর অনুমতি চাই আমরা। কারণ একদিকে আমাদের শ্রমিকরা বেকার, অন্যদিকে ঈদে যাত্রীদের এত চাপ ১৮টি লঞ্চে সামাল দেওয়া সম্ভব নয়।
এর আগে ২০ মার্চ শীতলক্ষ্যা নদীতে কার্গো জাহাজ রূপসী-৯ এর ধাক্কায় যাত্রীবাহী লঞ্চ এম এল আফসার উদ্দিন ডুবে ১০ জনের মৃত্যু হয়। ওই ঘটনার পর থেকে দুর্ঘটনা ও প্রাণহানি এড়াতে নারায়ণগঞ্জ থেকে পাঁচটি রুটে চলাচলকারী যাত্রীবাহী লঞ্চ চলাচল বন্ধ করে দেয় বিআইডব্লিউটিএ। তবে যাত্রীদের দুর্ভোগের কথা বিবেচনা করে নারায়ণগঞ্জ-মুন্সিগঞ্জ রুটে একটি সি-ট্রাক ও ঢাকা থেকে আসা দুটি লঞ্চ চালু করা হয়েছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published.