নিত্যপণ্যের মূল্যবৃদ্ধি নিয়ন্ত্রণ জরুরি

বাংলাদেশে নিত্যপণ্যের বাজারের অস্থিরতা নতুন কিছু নয়। নিত্য পণ্যের বাজার কার্যতঃ সরকার নিয়ন্ত্রণের কথা বললেও প্রকৃতপক্ষে এর নিয়ন্ত্রণ বরাবরের মতো কিছু ব্যাবসায়ি সিন্ডিকেটের হাতেই থেকে যাচ্ছে বার বার। এই সিন্ডিকেট অনেক ক্ষমতাধর হওয়ার কারণে সরকারও বার বার উদ্যোগ গ্রহণ করে নিত্যপণ্যের বাজারের স্বাভাবিক অবস্থা ধরে রাখতে পারছে না।

নিত্য পণ্যের মূল্য কমাতে সরকারের চেষ্টার কোন ঘাটতি আছে আমরা তা বলছি না। সরকার টিসিবির মাধ্যমে সারা দেশের মতো চাঁদপুরেও কম মূল্যে পণ্য বিক্রি করে বাজার স্বাভাবিক রাখার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু অসাধু সিন্ডিকেটটি সব সময় বাজারে নিত্যপণ্যের কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করে রাখার কারণে সরকারের সকল চেষ্টা ব্যর্থ হচ্ছে।

আমাদের দেশে যেসব পণ্যের দাম একবার বৃদ্ধি পায় পরবর্তিতে সেই পণ্যের দাম আর কমতে চায় না। সরকারও তখন বাধ্য হয়ে মূল্য বৃদ্ধি রেখেই দাম নির্ধারণ করে দেয়। কিন্তু এতেও অসাধু ব্যাবসায়িরা থেমে থাকে না। তারা প্রতিনিয়তই চক্রান্তে লিপ্ত থাকে। বর্ধিত মূল্যের উপর আবারও বাড়াতে থাকে পণ্যের দাম। যার কারণে কোন পণ্যের দামই এক জায়গায় বেশিদিন স্থির থাকে না।

বর্তমানে সারাদেশের মতো চাঁদপুরেও নিত্যপণ্যের বাজারে দারুন অস্থিরতা দেখা দিয়েছে। প্রায় সকল পণ্যের দামই উর্ধগতির দিকে। কোন কিছুর দামই কমের দিকে নেই। এমনকি কাঁচা তরি-তরকারির দামও বেড়েছে কয়েকগুণ। তেল, পেঁয়াজ, রসুন, আদা, জিরার মূল্য বৃদ্ধির পাশাপাশি কাঁচা মরিচের দাম এখন ২০০ টাকা। করোনা মহামারিতে সাধারণ মানুষের জীবন যাত্রা যখন ত্রাহি অবস্থা এর মধ্যে নিত্য পণ্যের মূল্যবৃদ্ধি ‘
‘মরার উপর খাড়ার ঘা’ এর মতো।

সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগের বাজার মনিটরিং থাকলেও কিছু অসাধু ব্যাবসায়িদের কারসাজিতে নিত্যপণ্যের বাজারে চরম অস্থিরতা দেখা দিয়েছে। আমরা দেখেছি ঐ সব ব্যবসায়িরা একটি সিন্ডিকেট তৈরি করে বার বার একটি কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করে। অধিক মুনাফা লাভের জন্য এসব অসৎ মনোভাবের মানুষগুলো প্রতিনিয়তই বাজারকে অস্থির করে রাখে।

সরকার বলছে বর্তমানে বাজারে যেসব পণ্যের মূল্য উর্ধগতি রয়েছে মূলতঃ দেশে এসব পণ্যের কোন ঘাটতি নেই। তাহলে কেন এসব পণ্যের মূল্য বেড়েই চলছে তা কেউ বলতে পারছে না।

তবে এ জন্য সরকারের সংশ্লিষ্ট দপ্তরের বাজার মনিটরিং আরো জোরদার করা ছাড়া আর কোন উপায় আছে বলে মনে হয় না। বিশেষ করে যেসব অসাধু ব্যাবসায়ি বাজারে নিত্যপণ্যের কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করে দ্রব্যমূল্য বাড়িয়ে দিচ্ছে তাদেরকে চিহ্নিত করতে হবে। ঐসব ব্যবসায়িদেরকে আইনের আওতায় এনে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারলে বাজার স্বাভাবিক হয়ে আসার সম্ভাবনা আছে। অন্যথায় মানুষের জীবন মহামারির এমন একটি কঠিন সময়ে আরো অস্বাভাবিক হয়ে উঠবে যে এতে কোন সন্দেহ নেই।

আমরা সরকারকে নিত্যপণ্যের বাজার অস্থির করে রাখা ঐসব অসাধু ব্যাবসায়িদের বিরুদ্ধে কার্যকর প্রদক্ষেপ গ্রহণের জন্য আহ্বান জানাচ্ছি।


২২আগস্ট, ২০২১;

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *