পেঁয়াজের বাজারে অস্থিরতায় মানুষের ভোগান্তি

পেঁয়াজের দাম বেড়েছে আবারো। রাজধানীর বাজারগুলোতে সপ্তাহের মধ্যেই পেঁয়াজের দাম বেড়েছে কেজিতে ২০ টাকা। প্রতি কেজি পেঁয়াজ সর্বনিম্ন ৫০ থেকে সর্বোচ্চ ৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। তবে সরকারি প্রতিষ্ঠান ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি) ট্রাকে পেঁয়াজ বিক্রি করছে ৩০ টাকা দরে। এবার কয়েক দিনের বৃষ্টির কারণে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে বলে দাবি বিক্রেতাদের। মজুদ সঙ্কটের কথাও বলছেন তারা।

ক্রেতারা বলছেন, বাজারে নতুন পেঁয়াজ উঠতে শুরু করার পরও মজুদ সঙ্কট বলে পেঁয়াজের দাম বাড়ানো খোঁড়া অজুহাত। টিসিবির দৈনিক তালিকায়ও পেঁয়াজের দাম বাড়ার তথ্য উঠে এসেছে। সংস্থাটির তথ্য মতে, এক সপ্তাহে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে প্রায় ৬০ শতাংশ। দেশী পেঁয়াজের পাশাপাশি আমদানি করা পেঁয়াজের দামও বেড়েছে আগের সপ্তাহের তুলনায়। সর্বোচ্চ ৬০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে আমদানি করা পেঁয়াজ আগের সপ্তাহে যা ছিল ৪৫ টাকা।

আমাদের দেশে অতি লাভের জন্য বেশির ভাগ ব্যবসায়ী নীতি-নৈতিকতার তোয়াক্কা করেন না। শুধু নিজেদের মুনাফাই মুখ্য। আসলে ব্যবসায়ীরা সব নীতি-নৈতিকতা বিসর্জন দিয়ে ভোক্তা অর্থাৎ গণমানুষের পকেট কাটতেই সিদ্ধহস্ত। কিন্তু অবাক করা বিষয় হলো- ব্যবসায়ীদের অতি মুনাফার মানসিকতায় লাগাম টানতে সরকারের তরফ থেকে কর্যকর উদ্যোগ নেই।

এ কথা বলা অযৌক্তিক নয় যে, মূলত সরকারের বেশির ভাগ নীতিই ব্যবসায়ীদের অনুকূলে। এ ক্ষেত্রে সাধারণ মানুষ থাকছেন উপেক্ষিত। এর অন্যতম কারণ, দেশে সুশাসনের অভাব। তা না হলে অবশ্যই সরকারি দায়িত্বে থাকা ব্যক্তিরা বাজার ব্যবস্থাপনায় নজরদারি দ্বারা জিনিসপত্রের দাম নিয়ন্ত্রণে আনতে কার্যকর পদক্ষেপ নিতেন। আসলে তাদের উদাসীনতাতেই পেঁয়াজের বাজারে অস্থিরতা।

কাজী মোহাম্মদ ইব্রাহীম জুয়েল

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *