চাঁদপুরে সর্বজনশ্রদ্ধেয় প্রবীণ সাংবাদিক শঙ্কর চন্দ্র দে’র অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন

চাঁদপুর প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য, কিংবদন্তীতুল্য প্রবীণ সাংবাদিক, জুট মিলের অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, পুরাণবাজার ডিগ্রি কলেজের সাবেক লাইব্রেরিয়ান, সর্বজনশ্রদ্ধেয় শঙ্কর চন্দ্র দে’র অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে।

৩ ফেব্রুয়ারি রাতে চাঁদপুর শহরের ইচলী মহাশ্মশানে শঙ্কর চন্দ্র দের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন হয়।

এরপূর্বে সন্ধ্যা ৬টায় শঙ্কর চন্দ্র দের মরদেহ তাঁর দীর্ঘদিনের প্রিয় কর্মস্থল চাঁদপুর প্রেসক্লাব প্রাঙ্গণে নিয়ে আসলে প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দ তাঁর প্রতি শ্রদ্ধার্ঘ্য নিবেদন করেন।

এ সময় প্রেসক্লাব সভাপতি গিয়াস উদ্দিন মিলনের পরিচালনায় গভীর শােক প্রকাশপূর্বক সংক্ষিপ্ত স্মৃতিচারণ করেন সাবেক সভাপতি কাজী শাহাদাত, গােলাম কিবরিয়া জীবন, অধ্যক্ষ জালাল চৌধুরী, শহীদ পাটোয়ারী, শরীফ চৌধুরী ও ইকবাল হােসেন পাটোয়ারী, সাবেক সাধারণ সম্পাদক সােহেল রুশদী, লক্ষ্মণ চন্দ্র সূত্র ধর ও এএইচএম আহসান উল্লাহ, টেলিভিশন
সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি আল-ইমরান শােভন প্রমুখ।
.
শঙ্কর চন্দ্র দে ৩ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার দুপুর ২টা ১০ মিনিটে মেথা রােডস্থ ভাড়া বাসায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিলাে ৭৮ বছর। তিনি স্ত্রী, দুই ছেলে, পুত্রবধূ, নাতি-নাতনিসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। তিনি ১০ জানুয়ারি নিজ ঘরের মধ্যে দুর্ঘটনাজনিত কারণে হাড় ভেঙ্গে বার্ধক্যজনিত জটিলতায় ভুগছিলেন।

শঙ্কর চন্দ্র দে ১৯৪৪ সালের ১ জানুয়ারি জন্মগ্রহণ করেন। তার পরিবার ছিলাে নদী ভাঙ্গনগ্রস্ত। চাঁদপুর শহরের মুখার্জী ঘাটের ছােট টিনের ঘরে দীর্ঘদিন তার জীবন কাটে। তিনি ১৯৬২ সাল থেকে ২০০৫ সাল পর্যন্ত ৪৩ বছর যাবৎ সাংবাদিকতা পেশায় সংশ্লিষ্ট ছিলেন। স্বাধীনতােত্তর তিনি দৈনিক বাংলার মহকুমা ও জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করেন। তিনি স্থানীয় পত্রিকা সাপ্তাহিক রূপসী বাংলায় সম্পাদকীয় লিখার কাজ করতেন। তিনি ছিলেন অত্যন্ত সৎ, নিষ্ঠাবান ও নিভৃতচারী। তিনি চাঁদপুর প্রেসক্লাব প্রতিষ্ঠিত উদয়ন শিশু বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য ছিলেন। তাঁর স্ত্রী মাধুরী রাণী দে গুয়াখােলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত সহকারী শিক্ষিকা। তার বড় ছেলে কলকাতা প্রবাসী। ছােট ছেলে পার্থ প্রতিম দে লেডী প্রতিমা মিত্র বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করেন।

প্রতিবেদকঃ আশিক বিন রহিম

Leave a Reply

Your email address will not be published.