চাঁদপুরে মসজিদের প্রবীণ ইমামকে কুপিয়ে

 

চাঁদপুরে মসজিদের প্রবীণ ইমামকে কুপিয়ে আহত

 

চাঁদপুর প্রতিনিধি

মসজিদ কমিটিতে পছন্দসই পদ না পাওয়ায় পিতা-পুত্র কর্তৃক মাওলানা মো. ইউসুফ খান (৬২) নামে একজন ইমাম ও খতিবকে পিটিয়ে রক্তাক্ত করা হয়েছে। ২৫ জুলাই সোমবার দুপুরে চাঁদপুর শহরের বিষ্ণুদী ঈমানীয়া জামে মসজিদের সামনে এই ঘটনা ঘটে। এলাকাবাসী আহত ইমামকে উদ্ধার করে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করান।

মাওলানা মো. ইউসুফ খান এর পূর্বে শহরের ঐতিহাসিক বাসস্ট্যান্ড গৌর-এ গরিবা জামে মসজিদে দীর্ঘ ১৭ বছর ইমামের দায়িত্ব পালন করেছেন। একজন প্রবীণ ও সর্বজন শ্রদ্ধেয়

ইমামকে এভাবে রক্তাক্ত জখম করায় এলাকাবাসীর মাঝে চরম ক্ষোভ দেখা দিয়েছে।

স্থানীয় এলাকাবাসী ও আহত ইমাম মাওলানা মোঃ ইউসুফ খান জানান, সোমবার দুপুরে তিনি স্থানীয় একটি বাড়িতে দুপুরের খাবার খেয়ে মসজিদের উদ্দেশ্যে হাঁটতে থাকেন। হঠাৎ

করে স্থানীয় দুলাল মৃধার ছেলে মেহেদী মৃধা পেছন থেকে মোটরসাইকেল চালানো অবস্থায় হরণ বাজান। সাথে সাথে ইমাম সাহেব মোটরসাইকেলটিকে সাইট দিতে রাস্তার একপাশে

চলে যান। কিন্তু রাস্তার পাশে দেয়াল থাকায় তিনি আর কোন দিকে নড়তে পারেননি। এমন তুচ্ছ ঘটনাকে উপলক্ষ্য করে বখাটে মেহেদী ইমাম সাহেবকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ

শুরু করে। এক পর্যায়ে হাতের মধ্যে স্টিলের রিং পরে এলোপাতারি ভাবে ইমামের গায়ে আঘাত করতে থাকেন। একই সাথে মেহেদীর পিতা দুলাল মৃধাও ইমামকে কিল, ঘুষি এবং

লাথি, মারেন। পিতা-পুত্রের আক্রমে কিছু বুঝে উঠার আগেই রক্তাক্ত ইমাম সাহেব মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। পরে এলাকাবাসী তাকে উদ্ধার করে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করান।

এদিকে স্থানীয় একটি সূত্রে জানা যায়, ঈমানীয়া জামে মসজিদের কমিটির উপদেষ্টা ছিলেন দুলাল মৃধা। গত এক মাস আগে গঠিত নতুন কমিটিতে দুলাল মৃধাকে উপদেষ্টা থেকে

সাধারণ সদস্য করা হয়। মসজিদ কমিটির উপদেষ্টা পদে না রাখায় তিনি ইমাম সাহেবকে দায়ী করেন।

মূলত সেই ক্ষোভ থেকেই দুলাল মৃধা এবং তার ছেলে ইমাম সাহেবকে টার্গেট করে আসছিলো। সোমবার মোটরসাইকেল সাইড না দেওয়ার অজুহাতে ইমাম সাহেবকে রক্তাক্ত করে তাদের ক্ষোভ ঝাড়েন বলে মনেকরেন আক্রান্ত ইমান।

Leave a Reply

Your email address will not be published.