ফরিদগঞ্জে স্মার্ট কার্ড বিতরণে অনিয়মের অভিযোগ

চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে ৮নং পাইকপাড়া দক্ষিণ ইউনিয়নে নতুন ভোটারদের কাছ থেকে স্মার্ট কার্ড বিতরণে অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

২২ নভেম্বর সোমবার সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, পাইকপাড়া দক্ষিণ ইউনিয়নের গাজীপুর গ্রাম ১নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য জসিম উদ্দিন পাঠানের বিরুদ্ধে স্মার্ট কার্ড বিতরণে কালে প্রতিটি স্মাট কার্ড ভাবত ২শ থে ২শ৫০ টাকা নিচ্ছেন কার্ড গ্রহিতাদের কাছ থেকে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি স্বীকার করে বলেন, যে সকল নতুন ভোটাররা স্লিপ হারিয়েছে, তাদের কাছ থেকে ইউনিয়ন তথ্য সেবা কেন্দ্রের নির্দেশনাক্রমে প্রতি কার্ডধারীর কাছ থেকে ২শ ৩০ টাকা সংগ্রহ করেছি।

জানা যায়, ১নং ওয়ার্ডে ৯৪ জন পুরুষ ও ৫৪ জন নারীকে নতুন স্মার্ট কার্ড দেওয়া হয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক স্মার্টকার্ড ধারী জানান, ২০১৮ সালে ভোটার হওয়ায় স্লিপ খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। তাই টাকা দিয়ে ইউপি সদস্যের কাছ থেকে স্মার্টকার্ড সংগ্রহ করেছি।

ইউনিয়ন তথ্য সহকারী আব্দুল কাদির লিটন জানান, ‘ইউপি সদস্যদের কে এরকম কার্ড বিতরণের সময় কোনও টাকা নেওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়নি।’

তিনি আরো জানান, আমাকে উপজেলা নির্বাচন কমিশন কার্যালয় থেকে ফোন দিয়ে বলা হয়েছে যে, ইউনিয়নের নতুন ভোটারদের স্মার্ট কার্ড সংগ্রহ করার জন্য আমি কার্ড গুলো সংগ্রহ করে ইউনিয়ন পরিষদে এনে ইউপি সদস্য দের মাঝে বিতরণ করেছি। ইউনিয়ন কার্যালয় থেকে টাকা নেয়ার কোনও নির্দেশনা দেওয়া হয়নি।

এ বিষয়ে, ৮নং পাইকপাড়া দক্ষিণ ইউনিয়নের চেয়্যারম্যান সওকত আলী বিএসসি জানান, এরকম কোন তথ্য যদি নির্বাচন কমিশন থেকে টাকা নেয়ার নির্দেশ দেওয়া হয় তাহলে টাকা নেওয়াটা সঠিক, তবে যদি, কমিশন এমন নির্দেশনা না দেয় তাহলে নেওয়াটা অন্যায়।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মিজানুর রহমান জানান, নির্বাচন কমিশন থেকে যাদের স্লিপ নেই তাদের বিষয়ে কোন সিদ্ধান্ত এখনো নেওয়া হয়নি। পাশাপাশি নির্বাচন কমিশন থেকে সিদ্ধান্ত আসলে যাদের স্লিপ হারিয়েছে তাদের স্মার্ট কার্ড বিতরণের জন্য যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.