ফানুস উড়ানো নিষিদ্ধ হোক

কাজী মোহাম্মদ ইব্রাহীম জুয়েল থার্টি ফার্স্ট নাইট ও ইংরেজি নববর্ষ উদযাপনে ফানুস ওড়াতে গিয়ে সারাদেশে প্রায় ২০০ স্থানে আগুন লাগার সংবাদ এসেছে জরুরি সেবা ৯৯৯ এবং ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স কন্ট্রোল রুমের কাছে। বিষয়টি নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় শুরু হয়েছে নিন্দার ঝড়।

যদিও ঈশাব্দ তথা খ্রিস্টিয় নববর্ষ বাঙালি সংস্কৃতি না হলেও তাকে এড়িয়ে যাবার কোনো সুযোগ নেই। বিশেষত আমাদের দৈনন্দিন কাজে ঈশাব্দের অপ্রতিরোধ্য ব্যবহার এর অপরিহার্যতাকে নিসংশয় করেছে। কিন্তু ঈশাব্দ উদযাপনের পন্থাটি নিজেদের সংস্কৃতির অনুসরণে করে নেয়াই যায়। তবে আতশ বাজি, ফানুস ওড়ানো সার্বজনীন বাঙালি সংস্কৃতি নয়। তাই নববর্ষ উদযাপনে এটা বন্ধ করা জরুরি।

গতকাল নববর্ষ উদযাপনে সারাদেশের ২০০টি স্থানে আগুন, এমনকি খোদ রাজধানীর ১০টি স্থানে আগুনের খবর। আল্লাহর অশেষ করুণা যে ভয়াবহ কোনো বিপর্যয়ে পড়তে হয়নি। কিন্তু এখনই সতর্ক না হলে বিপর্যয় বেশি দুরে নেই।

এসমস্ত আতশবাজি, ফানুস অবিলম্বে নিষিদ্ধ করা উচিৎ। আমাদের দেশের মতো অপরিকল্পিত এবং ঘনবসতিপূর্ণ শহরের জন্য এগুলো কোনোভাবেই উপযোগী নয়। এখনই সচেতন না হলে সামনে আরও খারাপ দিন দেখতে হবে। এ রকম একটা শুভ দিনে এসব গজব সৃষ্টি করে হাজারো মানুষের স্বপ্ন ধ্বংস করে দিচ্ছে না তো? মানুষ এখন আর মানুষ নাই, অমানবিক এসব কার্যকলাপ করে হায়েনার রুপ ধারণ করছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *