বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ে তুলবো: শিক্ষামন্ত্রী

আশিক বিন রহিম:  বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে চাঁদপুরে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৭৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করা হয়েছে। এই উপলক্ষে ৪ জানুয়ারি মঙ্গলবার বেলা ১১টায় বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা ও সমাবেশের আয়োজন করা হয়। চাঁদপুর শহরের হাসান আলী স্কুল মাঠে এই আয়োজনের প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এমপি।

তিনি বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশের ইতিহাসের সঙ্গে ছাত্রলীগ অঙ্গাঅঙ্গিভাবে জড়িত। ছাত্রলীগ আমাদের আবেগ এবং ভালবাসার নাম। আমি ছাত্রলীগের সাবেক একজন কর্মী হিসেবে এবং বাংলাদেশ ছাত্রলীগের প্রথম কাউন্সিল নির্বাচনে নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদকের কন্যা হিসেবে ছাত্রলীগকে নিয়ে গর্বিত। আমাদের ভাষা ও স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাস এবং গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার সংগ্রামের সঙ্গে ছাত্রলীগ ওতপ্রোতভাবে জড়িত।

মন্ত্রী বলেন, করোনা পরিস্ততি খুব এখনো স্বাভাবিক হয়নি। খেয়াল রাখতে হবে, অতি মহামারী ও করোনার এ সময়টাতে নিজের পরিবারসহ দেশের সকলকে করোনা মুক্ত রাখতে ছাত্রলীগের দায়িত্ব এবং কর্তব্য রয়েছে। আমরা সকলেই যেন মাক্স ব্যবহার করি এবং অন্যকেও স্বাস্থ্যবিধি মানতে উৎসাহিত করি। আমাদের অসাবধানতায় করনো ব্যাপক হারে বেড়ে যেতে পারে।

এছাড়াও শিক্ষামন্ত্রী ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের দেশ ও জনকল্যাণে নিবেদিত হয়ে কাজ করার আহ্বান জানান। আগামী জাতীয় নির্বাচনকে কেন্দ্র করে স্বাধীনতাবিরোধী কোন অপশক্তি মাথাচাড়া দিয়ে উঠতে না পারে সেদিকে সকলেই খেয়াল রাখতে হবে।

সমাবেশে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাছির উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র মো. জিল্লুর রহমান জুয়েল, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাড. মজিবুর রহমান ভূঁইয়া, তাফাজ্জল হেসেন এসডু পাটোয়ারী, ফরিদগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাড. জাহিদুল ইসলাম রোমান প্রমুখ।

চাঁদপুর জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি জহির উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেনের পরিচালনায় এসময় জেলা ছাত্রলী, পৌর এবং সদর উপজেলা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের শুভ সূচনা করা হয়। পরে বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে এবং কেক কেটে কর্মসূচির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি এমপি বলেছেন, আজকে আমরা এমন একটি সময় ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করছি, যখন সারা বিশ্ব করোনা অতিমারিতে পর্যুদস্ত, কোথায় তৃতীয় ও চতুর্থ ঢেউ চলছে। লক্ষ লক্ষ মানুষ আক্রান্ত হচ্ছে। গত একদিনে প্রায় ৩০লাখ মানুষ সারা বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে এবং নতুন যে ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন সেটিও ইতোমধ্যে আমাদের দেশে শনাক্ত হয়েছে। কাজেই আমাদের এখন অত্যন্ত সতর্ক হওয়ার সময়। মনে রাখতে হবে গত বছর যখন করোনা বেড়েছে, তখন চাঁদপুর জেলা বেশী আক্রান্ত জেলার মধ্যে একটি ছিল। আমরা তার পুনরাবৃত্তি চাই না।

মঙ্গলবার (৪ জানুয়ারি) দুপুরে চাঁদপুর হাসান আলী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ প্রাঙ্গনে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৭৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে জেলা ছাত্রলীগের বর্ণাঢ্য আয়োজনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, আজকে যে সমাবেশ এটি করোনা পরিস্থিতির মধ্যে না হলেও ভাল হত। কিন্তু আমি এটাও বুঝি ছাত্রলীগ আমাদের আবেগ ও ভালবাসার নাম। সে জন্য ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে আমরা সকলে একত্রিত হতে চেয়েছি। কিন্তু মনে রাখতে হবে, করোনা অতিমারির এ সময় নিজেদেরকে, প্রিয়জনদেরকে, সঙ্গী সাথীদেরকে এবং রাজনৈতিক কর্মী হিসেবে আমাদের এলাকার মানুষসহ দেশকে করোনামুক্ত রাখা ছাত্রলীগের প্রতিটি কর্মীর দায়িত্ব এবং কর্তব্য।

ছাত্রলীগের উদ্দেশ্যে করে মন্ত্রী বলেন, আগামী দুই বছর পরেই জাতীয় নির্বাচন। সে নির্বাচনকে সামনে রেখে দেশ বিরোধী, স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তি আবার মাথা ছাড়া দিয়ে উঠবার অপচেষ্টা করছে। তারা এদেশের সুনাম ও সম্মান ক্ষুন্ন করবার চেষ্টা করছে। তারা দেশকে অস্থিতিশীল করবার চেষ্টা করছে। আওয়ামী পরিবারসহ তাদের এই অপচেষ্টাকে এদেশের প্রতিটি সাধারণ মানুষ শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধভাবে রুখে দাঁড়াবে এটি আজকের এই দিনে আমাদের অঙ্গীকার। সেখানে ছাত্রলীগের রয়েছে বিশাল ভূমিকা।

দীপু মনি বলেন, তোমরা নেত্রীর উন্নয়ন, শান্তি ও সমৃদ্ধির কথা। অর্থাৎ তিনি দেশকে যে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন এবং বিশ^ শান্তি প্রতিষ্ঠায় তার যে চেষ্টা, তার মানবিকতার যে নির্দশন সে সমস্ত কথা মানুষের কাছে বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দিবে। এটিও তোমাদের কাজ। আমি আশা করি আমরা সকলে মিলে এই কাজটি করব ইনশাআল্লাহ। আবারও শেখ হাসিনাকে জয়যুক্ত করে আমাদের এই উন্নয়ন ও অগ্রগতির ধারাকে অব্যাহত রেখে দেশকে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলায় রূপান্তরিত করব। রুখে দিব সমস্ত চক্রান্ত ও ষড়যন্ত্র এবং স্বাধীনতা বিরোধীদের সকল অপচেষ্টা।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. জহির উদ্দিন এবং সঞ্চালনায় ছিলেন সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন।

বর্ণাঢ্য এই আয়োজনে জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি নাছির উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ¦ আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র মো. জিল্লুর রহমানসহ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

জাতীয় সংগীত পরিবেশন, বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে অনুষ্ঠানের শুভ সূচনা হয়। একই সময় সকল নেতৃবৃন্দকে সাথে নিয়ে জন্মদিনের কেক কাটেন শিক্ষামন্ত্রী এবং ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে শিশু শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করেন। এর পূর্বে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা খন্ড খন্ডভাবে শোভাযাত্রা নিয়ে অনুষ্ঠানে যোগ দেয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *