যে কারণে আত্মহত্যা করতে চেয়েছিলেন জনপ্রিয় এই বাঙালি অভিনেতা

বাণিজ্যিক ও শৈল্পিক ঘরানার সিনেমায় সমানতালে অভিনয় করেছেন তিনি। তিনি যেমন ‘ডিসকো ড্যান্সার’ করেছেন, তেমনই করেছেন মৃণাল সেনের ছবিও। বাঙালি এই অভিনেতার শুরু বাংলা সিনেমা দিয়েই। প্রথম ছবি ‘মৃগয়া’র জন্য সেরা অভিনেতা হিসেবে পেয়েছিলেন ভারতের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। বাংলায় কাজের পর পাড়ি জমান মুম্বাইয়ে। শুরু হয় হিন্দি সিনেমায় সুযোগ পাওয়ার সংগ্রাম। সেটা এতটাই যে আত্মহত্যার চিন্তাও মাথায় এসেছিল তাঁর। সেই অভিনেতা আর কেউ নন, মিঠুন চক্রবর্তী। সম্প্রতি টাইমস অব ইন্ডিয়াকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এ প্রসঙ্গে কথা বলেছেন মিঠুন।

যে কারণে আত্মহত্যা করতে চেয়েছিলেন জনপ্রিয় এই বাঙালি অভিনেতা-

মিঠুন বলেন, ‘সবাইকে নানা ধরনের সংগ্রামের মধ্য দিয়ে যেতে হয়। কিন্তু আমারটা ছিল ভীষণ কঠিন। মাঝেমধ্যে মনে হতো, নিজের লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারব না। এই হতাশা থেকে আত্মহত্যার কথা পর্যন্ত ভেবেছি। বেশ কিছু কারণে কলকাতাতেও ফিরে যেতে পারছিলাম না। তবে আমার পরামর্শ, যুদ্ধ না করে জীবন শেষ করে যাওয়ার চিন্তা করা উচিত নয়। আমি জন্মগতভাবে একজন যোদ্ধা, যে হারতে জানে না। দেখুন, এখন আমি কোথায় পৌঁছে গেছি।’

চলচ্চিত্রের ক্যারিয়ারে চার দশকের বেশি সময় পার করেছেন অভিনেতা। দীর্ঘ এই চলচ্চিত্র ভ্রমণে কী পরিবর্তন দেখলেন। এ প্রশ্নের উত্তরে মিঠুন বলেন, ‘সময়ের সঙ্গে মানবিক মূল্যবোধ কমেছে। এর জন্য মূলত দায়ী সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম। অনলাইনের করণে নেতিবাচক বিষয় নিয়ে মানুষের মধ্যে আগ্রহ তৈরি হয়েছে। আগে আমরা একসঙ্গে বসতাম, খাবার খেতাম। কিন্তু এখন যে যার ভ্যানিটি ভ্যানে বসে থাকে, নিজের ফোন নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়ে।’

অসুস্থতার কারণে কয়েক বছর ধরে অভিনয়ে অনিয়মিত মিঠুন। তবে চলতি বছর প্রশংসিত হয়েছেন আলোচিত-সমালোচিত ছবি ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’-এর জন্য। সামনে বাংলা সিনেমা ‘প্রজাপতি’তে দেখা যাবে তাঁকে। সঞ্জয় দত্ত ও জ্যাকি শ্রফের সঙ্গে মিঠুনের ছবিও মুক্তি পাবে। এ ছবি নিয়ে মুখ খোলেননি অভিনেতা। এ ছাড়া ছোট পর্দায় রিয়েলিটি শোর বিচারক হিসেবেও দেখা যাবে মিঠুনকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.