হাজীগঞ্জে সেই বেপরোয়া বাস চালক গ্রেফতার

হাজীগঞ্জে সড়ক দূর্ঘটনা ৩ মোটরসাইকেল আরোহী মৃত্যুর পর ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের লোকদের নিকট লাশ হস্তান্তর করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় বাস চালককে একমাত্র আসামী করে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের পক্ষ থেকে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। শনিবার (৪ ডিসেম্বর) দিবাগত রাতে এই মামলাটি দায়ের পূর্বেই ঘাতক বাস চালককে আটক করে পুলিশ।

নিহতদের সফর সঙ্গী রবিউল ইসলাম মুটোফোনে জানান, শনিবার সকালে নিহত তিন বন্ধু কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলার বেলাস্বর গ্রামের সোহাগ (২৬), সুজন (৩০) ও মনির হোসেন (৩০) এর লাশ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

থানা সূত্রে জানা যায়, গত শুক্রবার (৩ ডিসেম্বর) দুপুরে হাজীগঞ্জ পৌরসভাস্থ বলাখান হান্নান ফিলিং স্টেশনের সম্মূখে বোগদাদ বাসের চাপায় ৩ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়। ওই সময় বাস চালক ৩ মটর আরোহীকে চাপায় দ্রুতগতিতে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। পরে স্থানীয় লোকজন এবং থানা পুলিশের সহযোগিতা বাসটি আটক করতে সক্ষম হলেও চালক পালিয়ে যায়। দীর্ঘ সময় অভিযান চালিয়ে ঘাতক বাস চালককে আটক করে থানা পুলিশ। ওই দিনই ৩ আরোহীকে দূর্ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চাঁদপুর মর্গে পাঠানো হয়। শনিবার (৪ ডিসেম্বর) দুপুরে ময়নাতদন্ত কার্যক্রম শেষে নিহতদের স্বজনদের নিকট লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে থানা সূত্র নিশ্চিত করেছে।

অপরদিকে নিহতদের পরিবারের পক্ষ থেকে আলম হোসেন নামীয় ব্যক্তি বাদী হয়ে হাজীগঞ্জ থানা একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। যার মামলা নং-৮। এ মামলা ঘাতক বাস চালক আ. রাজ্জাক (২৫) কে একমাত্র আসামী হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করেছে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলো। বর্তমানে বোগদাদ বাসটি হাজীগঞ্জ পুলিশের হেফাজতে রয়েছে এবং ঘাতক চালককে চাঁদপুর আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক (এসআই) জয়নাল আবেদীন বলেন, দূর্ঘটনার পর পরই বোগদাদ বাস এবং ঘাতক চালককে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনা একটি মামলা দায়ের হয়েছে।

থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. হারুনুর রশীদ বলেন, ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে মৃতদেহ হস্তান্তর করা হয়েছে। সে সাথে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মামলা বাস চালককে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

হাজীগঞ্জ প্রতিনিধি

Leave a Reply

Your email address will not be published.