বিষাক্ত জেলি মিশ্রিত চিংড়ি ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ প্রয়োজন

কাজী মোহাম্মদ ইব্রাহীম জুয়েল: চাঁদপুর সদর উপজেলার হরিনা ফেরিঘাট দিয়ে প্রায়শই বিষাক্ত জেলি মিশ্রিত চিংড়ি মাছের চালান এসে থাকে । এসব ক্ষতিকর চিংড়ি চাঁদপুরসহ সারাদেশের হাট বাজারে অত্যন্ত চড়া দামে বিক্রি হয়ে থাকে। একদিকে যেমন দাম বেশী অপর দিকে ক্ষতির মধ্যেও পড়তে হচ্ছে ভোক্তাদেরকে। এসব চিংড়ি মাছ খেয়ে মানুষ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। যতোই দিন যাচ্ছে মানুষের স্বাস্থ্যঝুঁকি বেড়েই চলছে। পরিবহনের পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করা দরকার।
তাই এসব চিংড়ি যেখান থেকে বা যেসব কোম্পানী থেকে আপলোড করা হয় সেইসব কোম্পানীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা দরকার। ঐসব কোম্পানীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিলে এভাবে মানুষ আর প্রতারিত হবে না।
তাছাড়া এসব মাছ বিদেশেও রপতানি হয়ে থাকে। এক শ্রেণীর অসাধু ব্যবসায়ীর কারণে এভাবেই দেশের ভাবমুর্তি বিদেশেও ক্ষুন্ন হয়। এ ব্যাপারে সরকারকে আরো কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করা অপরিহার্য।
তাছাড়া আইন শৃংখলা বাহিনীকেও এসব চালানের ব্যাপারে আরো কঠোর হওয়া অপরিহার্য। কারণ যতোই কঠোরতা প্রয়োগ করা যাবে ততোই অসাধু ব্যবসায়ীরা সতর্ক হবে। তাই এ ব্যাপারে ব্যবসায়ীদেরকেও অসৎ মনোভাব থেকে ফিরে আসতে আমরা আহ্বান জানাচ্ছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.