চাঁদপুরে ডায়রিয়ার প্রাদুর্ভাব বৃদ্ধি

চাঁদপুরে ডায়রিয়ার প্রাদুর্ভাব বৃদ্ধি পেয়েছে। ভ্যাপসা গরমে অবিশুদ্ধ খাবার গ্রহণ ও দূষিত পানি পান করায় ডায়রিয়া পরিস্থিতি খারাপের দিকে যাচ্ছে বলে আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র(আইসিডিডিআরবি) মতলব হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে। পরিসংখান মতে চাঁদপুরের মতলব উত্তর ও মতলব দক্ষিণসহ জেলার প্রায় সব কটি উপজেলায় ডায়রিয়া বৃদ্ধি পাচ্ছে।

আইসিডিডিআরবিতে গত ২৩ দিনে (১ থেকে ২৩ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত) ভর্তি হয়েছে ১ হাজার ৭শ’ ২৯ জন ডায়রিয়া রোগী। গড়ে প্রতিদিন ভর্তি হয়েছে ৭৫ জনের বেশি। এ সংখ্যা স্বাভাবিক সময়ের বেশি। ভ্যাপসা গরমে ডায়রিয়ার প্রকোপ বাড়ছে বলে মনে করছেন চিকিৎসকরা।

আইসিডিডিআরবির মতলব হাসপাতালে গত ১ থেকে ২৩ আগস্ট পর্যন্ত ভর্তি হয়েছিলেন ১ হাজার ৩শ’ ২২ জন ডায়রিয়া রোগী। এর মধ্যে মতলব উত্তর ও মতলব দক্ষিণসহ চাঁদপুরের আট উপজেলার বাসিন্দা ৫৬৭ জন। এর মধ্যে পুরুষ ২৮৭ ও নারী ২৮০ জন।
চলতি মাসের প্রথম ২৩ দিনে ভর্তি হওয়া ১ হাজার ৭শ’ ২৯ জনের মধ্যে ৮শ’ ৭ জন চাঁদপুরের আট উপজেলার বাসিন্দা। এর মধ্যে পুরুষ ৩৯১ ও নারী ৪১৬ জন। অন্যরা কুমিল্লা, শরীয়তপুর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, লক্ষ্মীপুর, নোয়াখালী ও ফেনীসহ আশপাশের এলাকার বাসিন্দা।

শুক্রবার দুপুর ১২টা পর্যন্ত এই হাসপাতালে নতুন রোগী ভর্তি হয়েছেন ৪২ জন। বেলা ১১টায় সরেজমিনে দেখা যায়, আইসিডিডিআরবি হাসপাতালের প্রতিটি ওয়ার্ড ডায়রিয়া রোগীতে ঠাসা। নারী ও শিশু ওয়ার্ডে রোগীর চাপ বেশি। একাধিক চিকিৎসক রোগীদের চিকিৎসা দিচ্ছেন, খোঁজখবর নিচ্ছেন।

ফরিদগঞ্জ উপজেলার নয় মাসের শিশু রাফিয়া আক্তার ডায়রিয়ায় আক্রান্ত। তার মা ফাতিমা বেগম বলেন, ‘ঘন ঘন পাতলা পায়খানা ও বমির কারনে আজ সকালে মেয়েকে এখানে এনেছি। চিকিৎসকরা খাবার স্যালাইন ও ওষুধ দিয়েছেন। এখন তার অবস্থা ভালার দিকে।’

আইসিডিডিআরবির মতলব হাসপাতালের স্টেশন প্রধান মো. আল ফজল খান বলেন, ভ্যাপসা গরমে ডায়রিয়া রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। অবিশুদ্ধ খাবার গ্রহণ ও দূষিত পানি পান করায় ডায়রিয়া পরিস্থিতি আরো খারাপ হচ্ছে। তবে রোগীদের চিকিৎসা দেওয়ার মতো প্রয়োজনীয় শয্যা, চিকিৎসা সরঞ্জাম ও ওষুধের ব্যবস্থা রয়েছে এই হাসপাতালে।

অবিশুদ্ধ খাবার ও দূষিত পানি বর্জনের আহ্বান জানিয়ে আল ফজল বারবার পানির মতো পাতলা পায়খানা হলে, ঘন ঘন বমি হলে, পায়খানার সঙ্গে রক্ত গেলে ও গায়ে জ্বর থাকলে রোগীকে দ্রুত নিকটস্থ স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন।

মতলব প্রতিনিধি

Leave a Reply

Your email address will not be published.