সন্দেহ হত্যা : ভোলায় উদ্ধার হওয়া অজ্ঞাত লাশের সাথে মিল খুঁজছে পুলিশ : চাঁদপুরে ৬ দিন ধরে ছাত্রলীগ কর্মী নিখোঁজ

 

স্টাফ রিপোর্টার

চাঁদপুর সরকারি কলেজের ছাত্র ও ছাত্রলীগ কর্মী ওয়াহিদুর রহমান ওরফে প্রান্ত (২২) ছয় দিন ধরে নিখোঁজ। ২ সেপ্টেম্বর সকালে বাড়ি থেকে বের হওয়ার পর তিনি আর ফিরে আসেননি। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত তাঁর কোনো হদিস মেলেনি।

নিখোঁজ ওয়াহিদুর রহমান চাঁদপুর সরকারি কলেজের ডিগ্রি দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র। তিনি কলেজে ছাত্রলীগের রাজনীতিতে সক্রিয়। চাঁদপুর শহরের বড় স্টেশন এলাকার বাসিন্দা জেলা শ্রমিক লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি

মাহবুবুর রহমানের ছেলে তিনি।

এ ঘটনায় পরিবারের পক্ষ থেকে ৫ সেপ্টেম্বর চাঁদপুর মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়েছে। নিখোঁজ ওয়াহিদুরের বাবা মাহবুবুর রহমান বলেন, ‘আমার ছেলে আজ ছয় দিন ধরে নিখোঁজ। কিন্তু পুলিশ এর

কোনো রহস্য উদ্ঘাটন করতে পারছে না। এ জন্য আমরা প্রশাসনের আরও জোরালো ভূমিকা কামনা করছি।’

নিখোঁজ ওয়াহিদুর রহমানের বড় ভাই তোহিদুর রহমান বলেন, ৫ সেপ্টেম্বর চাঁদপুর মডেল থানায় জিডির পর পুলিশ ছোট ভাইয়ের মুঠোফোন নম্বর ট্র্যাকিং করে সর্বশেষ চাঁদপুর শহরের পুরানবাজার এলাকায় তাঁর

নম্বরটি সচল পায়। এর পর থেকে তাঁর মুঠোফোন নম্বরটি বন্ধ পাওয়া যাচ্ছে।

চাঁদপুর মডেল থানা-পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) রাশেদুজ্জামান বলেন, ভোলার তজুমদ্দিনে নদীতে ভাসমান একটি লাশ পাওয়া গেছে। সেই লাশের ৬০ শতাংশই নিখোঁজ ওয়াহিদুর রহমানের সঙ্গে মিল আছে।

এখন ডিএনএ পরীক্ষার মাধ্যমে পুরো বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যাবে।
ওয়াহিদুর রহমানের স্বজন পুরানবাজার ডিগ্রি কলেজের শিক্ষক মো. শোয়েব বলেন, ভোলায় উদ্ধার হওয়া লাশের ছবি দেখে মনে হয়েছে, তাঁকে (ওয়াহিদুর) কেউ মেরে ফেলেছে। এখন পুলিশই পারে বিষয়টি নিশ্চিত

করতে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *