মতলব উত্তরের সেই অসহায় মেয়েটির বন্ধি জীবনের অবসান হোক

কাজী মোহাম্মদ ইব্রাহীম জুয়েল চিকিৎসা ক্ষেত্রে এখন উৎকর্ষতার যুগ চলছে। যে কোন রোগের ঔষধ বা টিকা আবিস্কার করা যেন বিজ্ঞানিদের কাছে মামুলি ব্যাপার। পৃথিবীতে এমন কোন রোগ নেই যার কোন চিকিৎসা নেই। তবুও আমরা এখনো এমন কিছু বিরল রোগ দেখছি যার কোন চিকিৎসা দিতে পারছে না চিকিৎসকরা। বিশ্লেষকরা মনেকরছেন এর অন্যতম কারণ হলো রোগীকে চিকিৎসার জন্য উপযুক্ত চিকিৎসা কেন্দ্রে নিতে না পারা।
আমাদের দেশের জনসংখ্যার একটি বিরাট অংশ এখনো কুসংস্কার ও অসচেতনার শিকার। যার কারণে সঠিক চিকিৎসা পেতে বিলম্ব হয় এবং অপচিকিৎসার শিকার হয়ে অকালে প্রাণ হারায় অথবা ধুকে ধুকে মৃত্যুবরণ করে অসংখ্য মানুষ। এমনই একটি ঘটনা সম্প্রতি মতলব উত্তরের ফতেপুর পূর্ব ইউনিয়নের লুধুয়া গ্রামের মৃতু জোহর আলীর মেয়ে শিল্পি আক্তার নামের ৩২ বছরের এক যুবতীর জীবনে ঘটে চলেছে। ঐ যুবতীকে নিয়ে ইতোমধ্যে পত্রপত্রিকায় সংবাদও ছাপা হয়েছে। সংবাদে দেখা যায় ঐ যুবতীয় দীর্ঘ ২৫ বছর যাবৎ শিকলে বন্ধি জীবন যাপন করছেন।
আমরা দেখতে০ পাচ্ছি মানসিক প্রতিবন্ধিতার শিকার ঐ মেয়েটির জীবন একেবারেই অনিশ্চতায়। তবে মেয়েটি সুস্থ জীবনে ফিরে আসার অধিকার রয়েছে। এর জন্য মেয়েটি বাবা-মা কিংবা আত্মীয় পরিজন দায়িত্ব পালন করতে ব্যর্থ হলেও রাষ্ট্র তার দায়িত্ব পালন করতে পারলে মেয়েটি ফিরে পেতে পারে স্বাভাবিক জীবন। আমরা মনেকরি এর জন্য সরকারের স্বাস্থ্য বিভাগকে মেয়েটির জন্য উদ্যোগী হওয়া জরুরী। অন্যথায় রাষ্ট্র এর দায় এড়াতে পারবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published.