চাঁদপুর মাছঘাটে ইলিশে সয়লাব

দক্ষিণাঞ্চলের বৃহৎ ল্যান্ডিং স্টেশন চাঁদপুর বড় স্টেশন মাছঘাটে বেড়েছে ইলিশের আমদানি। নদীতে পানি বৃদ্ধি ও আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় প্রতিদিন গড়ে এক থেকে দেড় হাজার মণ ইলিশের সরবরাহ হচ্ছে এই ঘাটে। এতে যেমন হাসি ফুটেছে আড়তদারদের মুখে তেমনি শ্রমিকদের মাঝে ফিরেছে প্রাণচাঞ্চল্য।

যদিও ইলিশের দাম নিয়ে হতাশ সাধারণ ক্রেতা। তবে আড়তদারদের দাবি ইলিশের সরবরাহ এভাবে অব্যাহত থাকলে দাম আরো কিছুটা কমবে।

মূলত জুলাই, আগস্ট ও সেপ্টেম্বর মাস ইলিশের ভরা মৌসুম হিসেবে বিবেচনা করা হয়। মৌসুমী এই সময়ে চাঁদপুর বড় স্টেশন মাছঘাটে বর্তমানে প্রতিদিন গড়ে এক থেকে দেড় হাজার মণ ইলিশ সরবরাহ হচ্ছে। তবে আশানুরূপ মিলছে না পদ্মা ও মেঘনার কাঙ্খিত ইলিশ। আড়তদারদের দাবি অধিকাংশ ইলিশ সন্দীপ, হাতিয়া ও ভোলা থেকে আসা। আমদানি বাড়লেও চাহিদার তুলনায় এখনো ইলিশের সরবরাহ নেই বলে জানিয়েছেন তারা।

সরেজমিনে চাঁদপুর বড়স্টেশন মাছঘাট ঘুরে দেখা যায়, সকাল থেকে ট্রাক ও পিকআপে ঘাটে আসতে থাকে দক্ষিণাঞ্চলের ইলিশ। ঘাটের কর্মরত শ্রমিকরা সেগুলো নিয়ে স্তূপ করেন আড়তে। আড়তের কোণায় কোণায় এখন শুধু ইলিশ আর ইলিশ। যদিও ঘাটে আসা ইলিশের মধ্যে আকারে ছোট ইলিশের পরিমাণই বেশি। বড় আকারের ইলিশ চাহিদার তুলনায় অনেক কম বলে জানিয়েছেন আড়তদাররা।

মাছঘাটের আড়তদার বিল্পব সরকার ও নবীর হোসেন বলেন, মূলত ঈদ পরবর্তী সময়ে ইলিশের চাহিদা অনেক বেড়ে গেছে। কারণ ঈদের পরে অনেকের বাসায় বিভিন্ন আয়োজন হয়ে থাকে। সেখানে ইলিশের প্রয়োজন পড়ে। তাছাড়া ঘাটে যে মাছ আসছে তার অধিকাংশই সন্দীপ, হাতিয়া, ভোলা থেকে আসা। আমাদের পদ্মা মেঘনার ইলিশের আমদানি অনেক কম। এ কারণেই মূলত দাম এখনো সাধারণ ক্রেতাদের নাগালের বাইরে।

আড়তদারদের দেওয়া তথ্যমতে, চাঁদপুর মাছ ঘাটে বর্তমানে ৯০০ গ্রাম থেকে এক কেজি ওজনের ইলিশের কেজি প্রতি দাম ১১৫০ টাকা থেকে ১২০০ টাকা, ১ কেজি থেকে ১৩০০ গ্রাম ১৩৫০ থেকে ১৪০০ টাকা, দেড় কেজির অধিক ইলিশের দাম ১৬০০ থেকে ১৭০০ টাকা। দুই কেজি ইলিশের দাম ১৯০০ থেকে ২ হাজার টাকা।

চাঁদপুর মাছঘাটে শুধু ইলিশ আর ইলিশ

এদিকে ইলিশের সরবরাহ বৃদ্ধির খবরে অনেকেই ছুটে আসছেন ঘাটে। তবে আশানুরূপ দাম কমেনি বলে দাবি সাধারণ ক্রেতাদের।

হাজীগঞ্জ থেকে আসা ক্রেতা বাপ্পি মজুমদার ও শহরের বাসিন্দা রাজন গাজী বলেন, ইলিশের মৌসুম ভেবে ঘাটে এসেছি মাছ কিনতে। ভেবেছিলাম এখন দাম কম পাওয়া যাবে। তবে এসে দেখি দাম এখনো আগের মতো। আমদানি বৃদ্ধি পেয়ে লাভ কী? দাম তো আর কমেনি।

ঘাটে আসা ইলিশের অধিকাংশই ছোট সাইজের দাবি করে চাঁদপুর মৎস্য বণিক সমিতির সভাপতি আব্দুল বারি মানিক জমাদার বলেন, সরবরাহ বৃদ্ধি পেলেও দাম না কমার কারণ হলো ঘাটে যা ইলিশ আসছে তা আমাদের চাহিদার তুলনায় অনেক কম। তাছাড়া বর্তমানে প্রয়োজনীয় সকল নিত্যপণ্যের দাম বেশি ও জেলেদের জ্বালানি খরচ বেশি। এসব কারণে এখনো ইলিশের দাম একটু বেশি। তবে ইতোমধ্যে ছোট ইলিশের দাম কমেছে। বড় ইলিশের সরবরাহ যদি আরো বাড়ে তাহলে কিছুদিনের মধ্যে ইলিশের দাম কিছুটা কমবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *