৪ গ্রামের পানি প্রবাহে প্রতিবন্ধকতা কচুয়ায় মাছ চাষের অজুহাতে সরকারি ব্রীজের নিচে বাঁধ

কচুয়া উপজেলার ৮নং কাদলা ইউনিয়নের মুরাদপুর গ্রামের তালুকদার বাড়ির উত্তর পাশে সরকারি ব্রিজের নিচে ব্যক্তিগত বাঁধ দিয়ে পানি প্রবাহ আটকে দেয়ায় বিপাকে পড়েছে ৪ গ্রামের কৃষক। ব্রিজের নিচে ৪ ফুট উচু করে গাইডওয়াল দিয়ে মাছ চাষের অজুহাত দেখিয়ে বাঁধ নির্মাণ করে পানি প্রবাহে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির অভিযোগ উঠেছে ওই গ্রামের হানিফ তালুকদার বিরুদ্ধে।

সরেজমিনে মুরাদপুর গ্রামের একাধিক কৃষকের সাথে কথা হলে তারা জানান, মুরাধপুর, দোঘর, আয়মা, তেগুরিয়া গ্রামের মাঠের পানি নিষ্কাশনের জন্য ২০১৫ সালে ১৮ এপ্রিল সাবেক স্বারাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মহীউদ্দীন খান আলমগীর এমপি একটি সরকারি ব্রিজ নির্মাণ করেন। ওই ব্রিজের নিচে মুরাদপুর গ্রামের প্রভাবশালী হানিফ তালুকদার ইটের ওয়াল করে নৌকা চলাচল ও পানি প্রবাহে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে দেন।

গ্রীষ্মকালে মৌসুমী ফসল চাষাবাদ করতে চরম ভোগান্তি শিকার হন ৪ গ্রামের কৃষক। ব্রিজের নিচে বাঁধা অপসারণের জন্য গ্রামবাসী বললে বিভিন্ন মামলা-হামলা দিয়ে হয়রানী করেছেন হানিফ তালুকদার।

একই গ্রামের রফিকুল ইসলাম তালুকদার, হেলাল তালুকদার, হাবিব বেপারী, এমরান তালুকদার, নুরু তালুকদার, ইসমাইল তালুদার জানান, এ বাঁধের কারণে আমাদের অনেক দিক দিয়েই ক্ষতি হচ্ছে। সামনে আমরা মৌসুমি শস্য, শাক সবজি, পিঁয়াজ, রসুন, মরিচ আবাদ করি। কার্তিক মাসের প্রথম দিকেই এই চক শুকিয়ে যায় কিন্তু ব্রিজের নিচে বেড়িবাঁধ দেওয়ার কারনে চকে পানি থেকে যায়। আমরা এলাকাবাসী সবাই মিলে ব্রিজের নিচে গ্রীষ্ম মৌসুমে মাঠের পানি নিষ্কাশনের ও ইটের ওয়াল সরানোর জন্য প্রশাসনের কাছে হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

কচুয়া প্রতিনিধি

Leave a Reply

Your email address will not be published.