মাদক ও বাল্যবিবাহ রোধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে: পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী

মতলব উত্তর প্রতিনিধি: পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম বলেন, মাদক একটি বড় ধরনের সমস্যা। এ বিষয়টিকে প্রাধান্য দিয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছেন। সমাজ থেকে মাদক দূর করতে হলে সবার সহযোগিতা প্রয়োজন। এক্ষেত্রে শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের বিশেষ ভূমিকা রয়েছে। মাদকের ভয়াবহতা রোধে সন্তানদের প্রতি অভিভাবকদের আরো বেশী সচেতন হতে হবে। পাশাপাশি ছাত্রছাত্রীদের পড়ালেখায় মনোযোগী হতে হবে।
রবিবার (২৭ মার্চ) বিকেলে চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার বাগানবাড়ি আইডিয়েল একাডেমিতে উপজেলা প্রশাসন ও জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন কতৃক আয়োজিত মাদক বিরোধী অভিভাবক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।
তিনি বলেন, তথ্য প্রযুক্তি ও মোবাইল ফোনের বাজে দিক পরিহার করতে হবে। এ ব্যাপারে অভিভাবকদের অগ্রণী ভূমিকা রয়েছে। এদিকে বিদ্যালয়ে পড়ালেখার মান ভালো করতে শিক্ষক, শিক্ষার্থী, বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদ ও অভিভাবকদের সমন্বিত ভূমিকা প্রয়োজন।
পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, আগামী প্রজন্মের সুস্থভাবে বেড়ে উঠা এবং সুনাগরিক হিসেবে গড়ে উঠতে আমাদের দেশে বাল্যবিবাহ নামক ব্যাধী একটি সামাজিক বড় বাঁধা। তাই মাদক ও বাল্যবিবাহ রোধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।
বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি আলহাজ্ব অ্যাড. নুরুল আমিন রুহুল।
এসময় এমপি নুরুল আমিন রুহুল বলেন, বর্তমান সরকার মাদকাসক্তি মুক্ত বাংলাদেশ করতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। তথ্যপ্রযুক্তির এই যুগে মাদক ব্যবসায়রা নিত্য নতুন কৌশল অবলম্বন করে নতুন ধরনের মাদক পাচার ও ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। তরুণদের ধ্বংসের পথে নিয়ে যাচ্ছে। মাদকের এ আগ্রাসন বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষকে মাদক ব্যবসায় সম্পৃক্ত করছে যা দেশের উন্নয়নের অন্তরায়। যুব সমাজ তথা জাতিকে মাদকের এ ভয়াবহ আগ্রাসন থেকে রক্ষার লক্ষ্যে মাদক বিরোধী সর্বাত্মক সামাজিক সচেতনতা সৃষ্টির বিকল্প নেই।
বাগানবাড়ি ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল মামুনের সভাপতিত্বে ও ইমামপুর পল্লী মঙ্গল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সরকার আবুল কালাম আজাদের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা এমএ কুদ্দুস, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মঞ্জুর আহম্মেদ, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. মিজানুর রহমান (এসি মিজান), উপজেলা নির্বাহী অফিসার গাজী শরিফুল হাসান,
মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক এমদাদুল হক মিঠুন। আরো বক্তব্য রাখেন, সহকারী পুলিশ সুপার (হাজিগঞ্জ সার্কেল) সোহেল মাহমুদ, গজরা ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শহিদুল্লাহ প্রধান, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহজাহান প্রধান, বাগানবাড়ি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত) বীর মুক্তিযোদ্ধা আ. ছাত্তার, বাগানবাড়ি ইউনিয়ন কমিউনিটি পুলিশের সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার জামাল হোসেন নাহিদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.