চাঁদপুর মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা উদ্বোধন করবেন শিক্ষামন্ত্রী

‘এসো মিলি মুক্তির মোহনায়’ এ শ্লোগানে আজ ৮ ডিসেম্বর চাঁদপুর মুক্তদিবসে আউটার স্টেডিয়ামে শুরু হতে যাচ্ছে মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলার।

আজ বুধববার সকাল ১১ টায় মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলার গৌরবের ৩০ বছর পুর্তি এবং স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও মুজিব জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করবেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এমপি।

উদ্বোধক হিসেবে থাকবেন যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়ের পাটোয়ারী। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ, পুলিশ সুপার মো. মিলন মাহমুদ, চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব নাসির উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযুদ্ধা আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র মোঃ জিল্লুর রহমান জুয়েল। উদ্বোধন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন বিজয় মেলার স্টিয়ারিং কমিটির সভাপতি যুদ্বাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা এম এ ওয়াদুদ।

এদিকে মেলাকে সফল করতর মেলা মাঠের স্টল ও মঞ্চ নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। ৩০ বছরের মেলার পদার্পণে সুবিশাল পরিসরে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে মেলার কার্যক্রম। জেলা ও জেলার বাইরের প্রায় অর্ধশতাধিক সাংস্কৃতিক ও নাট্য সংগঠন এবছর মেলা মঞ্চে দর্শক উপভোগ্য অনুষ্ঠান পরিবেশন করবে। মেলা মঞ্চে প্রতিদিন থাকছে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের তাদের মহান মুক্তিযুদ্ধের বিরোচিত ঘটনাবলীর স্মৃতিচারণ। প্রতিবছরের ন্যায় এবছরেও মেলা মাঠে থাকছে মহান মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস নিয়ে গড়া সুসজ্জিত স্মুতিসংরক্ষণ ৭১গ্যালারী। যে গ্যালারী থেকে প্রজন্ম মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ও চাঁদপুরের বীর সেনানীদের সাথে পরিচিত হতে পারবে। এবছর শিক্ষার্থীদের জন্য থাকছে সাহিত্য সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা। মেলায় আগত শিশু কিশোরদের বিনোদনের জন্য থাকছে নাগরদোলা, ট্রয়ট্রেনসহ বিভিন্ন রাইডস্।

বিজয় মেলা সফল করতে উপদেষ্টা কমিটি, স্টিয়ারিং কমিটি, উদযাপন পরিষদ, নাট্য পরিষদ, সাংস্কৃতিক পরিষদ, প্রচার প্রকাশনা পরিষদ কাজ করে যাচ্ছে। বিজয় মেলার গৌরবের ৩০ বছর উদযাপনে চাঁদপুরবাসীর সহযোগীতা কামনা করেছেন বিজয় মেলার স্টিয়ারিং কমিটির সভাপতি যুদ্বাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা এম এ ওয়াদুদ, উদযাপন পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট বদিউজ্জামান কিরন ও মহাসচিব জারুন আল রশিদ। প্রতি বছরের মতো এবছরও মেলা মাঠে থাকছে মহান মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস নিয়ে সুসজ্জিত স্মৃতি সংরক্ষণ ৭১ গ্যালারী। সেই গ্যালারী থেকে প্রজন্ম মুক্তিযুদ্ধের ও স্বাধীনতার সঠিক ইতিহাস জানতে পারবে।

মেলায় আগত শিশু-কিশোরদের বিনোদনের জন্য থাকছে নাগরদোলা, ট্রয়ট্রেন, স্লিপিং, ইলেক্ট্রিক মেরি হাঁসসহ বিভিন্ন রাইডস্। বিগত বছরগুলোর মতো এবছরও মেলায় মুক্তিযুদ্ধ প্রেমিক সবাই আমন্ত্রিত।

Leave a Reply

Your email address will not be published.