মেঘনা সেতু হলে অর্থনীতি অনেক সমৃদ্ধ হবে: উপমন্ত্রী শামীম

স্টাফ রিপোর্টার পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্ব ব্যাংককে চ্যালেঞ্জ করে নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণ করেছেন। তার হাত ধরেই মেঘনা সেতু নির্মিত হবে। শরীয়তপুর-চাঁদপুর নৌরুটে মেঘনা সেতু নির্মিত হলে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের খুলনা ও বরিশাল বিভাগের ২২ জেলা, সিলেটের চার জেলা এবং চট্টগ্রাম বিভাগের ১১ জেলার সঙ্গে সরাসরি সড়ক যোগাযোগ স্থাপিত হবে। মেঘনা সেতু নির্মিত হলে দেশের অর্থনীতি অনেক সমৃদ্ধ হবে
শুক্রবার (২২ এপ্রিল) দুপুরে শরীয়তপুরের সখিপুরের আলুর বাজার সংলগ্ন মেঘনা নদী পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।
‘বিএনপি-জামায়াতের অবস্থা এখন ফিটনেসবিহীন গাড়ির মতো’‘বিএনপি-জামায়াতের অবস্থা এখন ফিটনেসবিহীন গাড়ির মতো’
উপমন্ত্রী বলেন, এছাড়া তিনটি সমুদ্রবন্দরের মধ্যে সড়কপথে পণ্য পরিবহণে সময় কমিয়ে আনাও সম্ভব হবে। এর ফলে দেশের অর্থনীতিতে বিরাট ইতিবাচক প্রভাব পড়বে। এই সেতুর একপ্রান্তে চাঁদপুরের হরিণা ফেরিঘাট আর অন্যপ্রান্তে শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ উপজেলার আলুবাজার ফেরিঘাট। দুই ফেরিঘাটের মধ্যে দূরত্ব নদী ও চর মিলিয়ে ১০ কিলোমিটার। সেতুটি হলে চাঁদপুর ও শরীয়তপুরেরই শুধু লাভবানই হবে না, সারাদেশে অর্থনীতি ও যোগাযোগ ব্যবস্থার পরিবর্তনে বিপ্লব সাধিত হবে। বাংলাদেশের জন্য যা কল্যাণকর বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাই করেন। বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সমৃদ্ধ বাংলাদেশে রুপান্তরিত হবে।
বঙ্গবন্ধু ছিলেন বিশ্বের নিপীড়িত মানুষের নেতা: পানিসম্পদ উপমন্ত্রীবঙ্গবন্ধু ছিলেন বিশ্বের নিপীড়িত মানুষের নেতা: পানিসম্পদ উপমন্ত্রী
এনামুল হক শামীম বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুদৃঢ় ও বলিষ্ঠ নেতৃত্বেই কারণেই সকল ষড়যন্ত্র উপেক্ষা করে নিজস্ব অর্থায়নে স্বপ্নের পদ্মা সেতু নির্মিত হয়ে যানবাহন চলাচল এখন সময়ের ব্যাপার। মানবতার মা, জননেত্রী শেখ হাসিনার সাহসী নেতৃত্বে এবার মেঘনা সেতুও নির্মিত হবে। তাই সরকার ২ শত ৪৩ কোটি টাকা ব্যয়ে স্পেনের বিশেষজ্ঞ প্রতিষ্ঠান দিয়ে মেঘনা সেতুর প্রাথমিক সমীক্ষার কাজ শুরু করেছে। শরীয়তপুরবাসীর পক্ষ থেকে জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।
উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ১০ মার্চ জাতীয় সংসদের প্রথম অধিবেশনে মেঘনা সেতুর জন্য প্রস্তাব দেন উপমন্ত্রী নিজেই। এদিকে মেঘনা সেতু নির্মাণেও সম্ভাব্যতা সমীক্ষা পরিচালনা এবং মাস্টার প্ল্যান প্রণয়নে ছয়টি পরামর্শক প্রতিষ্ঠান নিয়োগ দিয়েছে সরকার। মেঘনা নদীর যে ৯ টি পয়েন্ট সমীক্ষা হচ্ছে তার ৪ টি পয়েন্টের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। আগামী জুন মাসের মধ্যে বাকি ৫টি পয়েন্টর কাজ সমাপ্ত হবে।
শেখ হাসিনা হাওরের মানুষের মুখে স্থায়ী হাসি দেখতে চান: পানিসম্পদ উপমন্ত্রীশেখ হাসিনা হাওরের মানুষের মুখে স্থায়ী হাসি দেখতে চান: পানিসম্পদ উপমন্ত্রী
এসময় ভেদরগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান ও সখিপুর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব হুমায়ুন কবির মোল্লা, ইউএনও তানভীর আল নাসীফ, থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আতিকুর রহমান মানিক সরকার, সহ-সভাপতি জিতু মিয়া বেপারী, আনোয়ার হোসেন বালা, জেলা আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক খবিরুজ্জামান বাচ্চু, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক কাওসার আহমেদ তকি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.