যারা বাংলাদেশ চায়নি, জাতির পিতা তাদের ক্ষমা করেননি : অঞ্জনা খান মজলিশ

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬তম শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে চাঁদপুর জেলা প্রশাসনের আয়োজনে ব্যাপক কর্মসূচি পালন করা হয়। কর্মসূচীর মধ্যে জাতির পিতা ও তাঁর পরিবারের ১৮ সদস্যকে নির্মমভাবে হত্যার সেই ভয়াল ১৫ আগস্ট ও তার পরবর্তী প্রেক্ষাপট এবং বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রীর হাত ধরে আজকের বাংলাদেশের এগিয়ে যাওয়া বিষয়ে ভার্চুয়ালি আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

১৫ আগস্ট সকাল ১১টায় আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন অঞ্জনা খান মজলিশ। সভাপতি তাঁর বক্তব্যে বলেন, এই দেশ, এই মানচিত্র এই পতাকা জাতির পিতার সৃষ্টি। মাত্র ১১ মাসের মধ্যে তিনি একটা সংবিধান দিয়েছেন, যা সারা বিশ্বে বিরল। খুব অল্প সময়ের মধ্যে তিনি তাঁর স্বাধীন দেশে প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ বেশ কিছু প্রতিষ্ঠানকে জাতীয়করণ করেন। আমাদের দেশ ও জাতি সত্ত্বাকে সারা বিশ্বের কাছে উপস্থাপন করার জন্য তিনি জাতীয় মাছ, ফুল, ফল, জাতীয় পতাকা এবং জাতীয় সংগীতসহ নানা রাষ্ট্রীয় কাঠামোর বিষয়গুলো খুব দ্রুততার সাথে সম্পন্ন করেন।

জেলা প্রশাসক আরো বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব তাঁর স্বাধীন দেশ বাংলাদেশে পা রাখার আগেই স্বাধীনতার অগ্রযাত্রায় পরম মিত্র দেশ, ভারতের প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীকে বলেছেন, দ্রুত বাংলাদেশ থেকে ভারতীয় সেনাবাহিনী সরিয়ে নিয়ে যেতে এবং তাই হয়েছে। স্বাধীনতা বিরোধী চক্র তথা যারা বাংলাদেশ চায়নি, পাকদের দালালি করেছে, তাদের জাতির পিতা ক্ষমা করেননি।

সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রে এ আর এম জাহিদ হাসেনের সঞ্চালনায় আরো বক্তব্য রাখেন, পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাছির উদ্দিন আহমেদ, সাধারন সম্পাদক আবু নঈম দুলাল পাটোয়ারী, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা এমএ ওয়াদুদ চাঁদপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক অসিত বরণ দাশ, চাঁদপুর সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক মাসুদুর রহমান, পুরান বাজার ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ রতন কুমার মজুমদার, এিনএসআই পরিচালক শাহ আরমান আহমেদ, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শানজিদা শাহনাজ, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি ইকবাল হোসেন পাটোয়ারী প্রমুখ।

স্টাফ রিপোর্টার, ১৭ আগস্ট ২০২১;

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *