পুলিশের কাছে জবানবন্দিতে যা বলেছেন সালমান খান

বলিউড সুপারস্টার সালমান খান প্রাণনাশের হুমকি পাওয়ার পর থেকে মুম্বাই পুলিশ রীতিমতো চিন্তিত। তাই পুলিশের পক্ষ থেকে ভাইজান আর তাঁর পরিবারকে কড়া নিরাপত্তাব্যবস্থা দেওয়া হয়েছে। মুম্বাই পুলিশ আর ক্রাইম ব্রাঞ্চ এ মামলার তদন্ত করছে। সালমান খানের জবানবন্দি নিয়েছে পুলিশ। তবে ভাইজান জানিয়েছেন, তাঁর সঙ্গে কারও কোনো শত্রুতা নেই।

গত রোববার সকালে সালমানের বাবা সেলিম খান প্রাতভ্রমণের সময় এক উড়ো চিঠি পেয়েছিলেন। এ চিঠিতে সালামানকে মেরে ফেলার হুমকি দেওয়া হয়েছে। চিঠি পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই সেলিম খান বান্দ্রা পুলিশ স্টেশনে অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তিদের নামে এফআইআর করেছিলেন।

পুলিশের কাছে জবানবন্দিতে যা বলেছেন সালমান খান

মুম্বাই পুলিশ তদন্তের স্বার্থে ভাইজান আর তাঁর দুই ভাই সোহেল, আরবাজ এবং সেলিম খানের বয়ান নিয়েছে। গ্যাংস্টার গোল্ডি ব্রার আর লরেন্স বিষ্ণোইয়ের সঙ্গে তাঁর কোনো ধরনের সম্পর্ক আছে কি না, এ বিষয়ে মুম্বাই পুলিশকে সালমান বলেন, ‘হুমকি দেওয়া উড়ো চিঠির ব্যাপারে আমি কাউকে সন্দেহ করি না। আজকাল আমার কারও সঙ্গে কোনো শত্রুতা নেই। ২০১৮ সালে আমি প্রথম লরেন্স বিষ্ণোইকে চিনি। কারণ, সে আমায় হুমকি দিয়েছিল। কিন্তু আমি জানি না গোল্ডি ব্রার কে।’

কারও থেকে কোনো হুমকি পেয়েছেন কি না, জানতে চাইলে তিনি বলেছেন, ‘না, আমি কারও থেকে কোনো হুমকি পাইনি। গত কয়েক দিনে আমার কারও সঙ্গে ঝগড়া হয়নি। আর না আমি ফোনে বা মেসেজের মাধ্যমে কোনো হুমকি পেয়েছি। হুমকির চিঠি আমার বাবা পেয়েছেন। রোববার সকালে তিনি যখন হাঁটতে গিয়েছিলেন, তখন চিঠিটা পেয়েছেন। তাই কারও প্রতি সন্দেহ করার মতো কোনো কারণ আমার কাছে নেই।’

খুনের হুমকি দেওয়া এই উড়ো চিঠির সঙ্গে গ্যাংস্টার লরেন্স বিষ্ণোই বা গোল্ডি ব্রারের হাত আছে কি না, তা উদ্ধারের চেষ্টা করছে পুলিশ। কারণ, লরেন্স বিষ্ণোই আগে ভাইজানকে মেরে ফেলার ধমকি দিয়েছিলেন।
সালমান তাঁর আগামী ছবি ‘কাভি ঈদ কাভি দিওয়ালি’ শুটিংয়ে ব্যস্ত। এ ছবির শুটিংয়ের জন্য তিনি হায়দরাবাদ উড়ে গেছেন। গতকাল খবর ছিল যে এ ছবির নাম পরিবর্তন করে ‘ভাইজান’ রাখা হচ্ছে। ছবিতে সালমানের বিপরীতে পূজা হেগড়েকে দেখা যাবে। আর এ ছবির মাধ্যমে বলিউডে পা রাখতে চলেছেন শেহনাজ গিল। এ ছাড়া সালমানকে ‘টাইগার থ্রি’ ছবিতে দেখা যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.