রমজানে নিত্যপণ্যের বাজার স্থিতিশীল রাখার উদ্যোগ নিন

কাজী মোহ্মদ ইব্রাহীম জুয়েল

রমজানে বাজার স্থিতিশীল রাখতে ব্যবসায়ীদেরও মানসিক পরিবর্তন দরকার। তাদের নীতিনৈতিকতা মেনে ব্যবসায় করা উচিত। তবে সৎ উপদেশ দিলেই কেউ আপনা আপনি ভালো হয়ে যাবেন এমন নয়; তাই অতিরিক্ত মুনাফার লাগাম টানতে সরকারকে অবশ্যই কঠোর হতে হবে। মুশকিল হলো- বর্তমানে সরকারি অনেক সিদ্ধান্ত ব্যবসায়ীদের পক্ষে চলে যাচ্ছে।
সময়ে সময়ে দেশে নিত্যপণ্যের দাম অস্বাভাবিক বেড়ে যাওয়ার জন্য দায়ী প্রচলিত বাজারব্যবস্থা। কৃষক থেকে ভোক্তা পর্যন্ত কৃষিপণ্য পৌঁছতে অনেক হাতবদল হয়। এসব পণ্য যতবার হাতবদল হয়, ততই দাম বাড়ে। এ ছাড়া কৃষিপণ্য শহরাঞ্চলে পৌঁছাতে পরিবহন টোল ও চাঁদাবাজির শিকার হতে হয় ব্যবসায়ীদের। এতে করে বহুগুণে বেড়ে যায় দাম। এ জন্য আসন্ন রমজানে বাজার স্থিতিশীল রাখতে, পণ্য সরবরাহ বাধাহীন করতে পরিবহন টোল ও চাঁদাবাজি বন্ধ করা অত্যাবশ্যক।
বাজার বিশ্লেষকদের মতো আমরাও মনে করি, আসন্ন রমজানে নিত্যপণ্যের দাম সহনীয় রাখতে বড় প্রয়োজন বাজার নজরদারি জোরদার করা। এ ক্ষেত্রে ভোক্তা অধিকারসহ বিভিন্ন সংস্থার পক্ষ থেকে অভিযান পরিচালনা করা যেতে পারে। একই সাথে কৃত্রিম সঙ্কট সৃষ্টি ও মজুদকারীর বিষয়ে গোয়েন্দা নজরদারি বাড়ানোর কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে সরকারকে। তবেই পবিত্র রমজানে মানুষ একটু স্বস্তিতে রোজা রাখতে পারবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.