শাহরাস্তিতে ৩০ হেক্টর নিচু জমিতে আউশের বাম্পার ফলন

 

শাহরাস্তি প্রতিনিধি

চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে ৩০ হেক্টর নিচু জমিতে রোপা আউশ আবাদ করে কৃষকের বাম্পার ফলন হয়েছে। ১শ৫০ টন ফলন উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা, নমুনা শস্য কর্তন।

 

 

উপজেলা কৃষি অফিসার মোঃআহসান হাবীব ও উপ-সহকারী কৃষি অফিসার মোঃ মকবুল হোসেন জানান পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থা রেখে নিচু জমিতে

প্রথমবারের মতো আউশ আবাদে সফলতা ও শস্য কর্তন করা হয়েছে। শাহরাস্তি উপজেলার চিতোষী পূর্ব ইউনিয়নের কসবা ব্লকের তেতুশ্বর গ্রামে

সংলগ্ন মাঠে প্রথমবারের মতোই রোপা আউশ আবাদ করা হয়। উক্ত মাঠ নিচু হওয়ার কারণে সাধারণ বর্ষায় ৪ থেকে ৫ ফিটের মত পানি হয়। পানি

নিষ্কাশন ব্যবস্থা করে ও আবহাওয়া অনুকুল থাকায় কৃষি প্রণোদনা ২০২১-২০২২ এর মাধ্যমে সার- বীজ প্রদান ও কৃষকের উদ্যোগে প্রায় ৩০ হেক্টর

রোপা আউশ আবাদ করা হয়। গতকাল দুপুরে উক্ত মাঠের কৃষক আমান উল্লাহর জমিতে শস্য কর্তন করা হয়। শস্য কর্তন এর ফলন অনুযায়ী ৪.৫ টন॥

হেঃ ফলন পাওয়া যায়। উক্ত ফলন অনুযায়ী ৩০ হেক্টর জমিতে প্রায় ১শ৪০ থেকে ১শ৫০ টন ফলন আশা করা যায়। শস্য কর্তন অনুষ্ঠানে উপস্থিত

ছিলেন কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মোঃ হামিদুল ইসলাম, সহকারী কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা স্বপন চক্রবর্তী, উপ সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা

কৃষ্ণচন্দ্র দাস উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোঃ ইউনুস পাটোয়ারী, মোঃ গোলাম সারোয়ার উপসহকারী কৃষি অফিসার,সংশ্লিষ্ট ব্লকের উপসহকারী কৃষি

কর্মকর্তা মোঃ মকবুল হোসেন, রাসেল হায়দার স্থানীয় ইউপি সদস্য ও কৃষক বৃন্দ।উপজেলা কৃষি অফিস ার কৃষিবি দ মোঃ আহসান হাবিবের সার্বিক নির্দেশনায় কসবা ব্লকের উপসহকারী কৃষি অফিসার মোঃ মকবুল হোসেনের সার্বিক পরামর্শ মোতাবেক কৃষক ভাইদের প্রচেষ্টার ফলে উক্ত মাঠে ৩০

 

হেক্টর জমি রোপা আউশ চাষের আওতায় এসেছে এবং আশানুরূপ ফলন হয়েছে। এ বিষয়ে কৃষক আব্দুল মান্নান জানান উপজেলা কৃষি অফিসার

কৃষিবিদ মোঃ আহসান হাবিব এর সার্বিক সহযোগিতায় এই ৩০ হেক্টর জমিতে আমাদের বাম্পার ফলন হয়েছে। আশা করি কৃষি কর্মকর্তা আমাদেরকে

সবসময় সহযোগিতা দিয়ে আসছে ভবিষ্যতে আরো ভালো ফলন উৎপাদন করতে পারব ইনশাআল্লাহ। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ঠ ব্লকের উপ-সহকারী কৃষি

কর্মকর্তা মোঃ মকবুল হোসেন জানান ২০২১- ২২ এর আউশ প্রণোদনা ও কৃষকের নিজস্ব সহযোগিতায় ৩০ হেক্টর জমিতে রোপা আউশ আবাদ করা

হয় এবং আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় আশানুরূপ ফলন হয়েছে। আগামীতেও কৃষি অফিসের সকল সুযোগ সুবিধা ও এ ধরনের উদ্যোগ অব্যাহত থাকবে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.