শাহরাস্তি অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে আর্থিক সহায়তা প্রদান

শাহরাস্তি প্রতিনিধি শাহরাস্তি উপজেলার সূচিপাড়া দক্ষিণ ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের দিঘধাইর গ্রামের হাজের বাড়ির বসতঘর ভস্মীভূত হওয়া ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে আর্থিক সহায়তা দিয়ে পাশে দাঁড়িয়েছেন চাঁদপুর-৫ (শাহরাস্তি-হাজীগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম, এমপি।
২৬ ডিসেম্বর (সোমবার) বেলা ১১ টায় সাংসদ এর পক্ষে ক্ষতিগ্রস্থদের প্রত্যেককে ৫ হাজার টাকাসহ ২টি করে কম্বল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, পৌর মেয়র, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ঘটনাস্থলে গিয়ে ক্ষতিগ্রস্থদের হাতে তুলে দেন। এ সময় স্থানীয় সংসদ সদস্য টেলিকনফারেন্সে ক্ষতিগ্রস্তদের সাথে কথা বলেন এবং তাদের প্রতি সমবেদনা জানান। তিনি ভস্মীভূত হওয়া ঘরগুলো পুনঃনির্মাণের জন্য দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ে আবেদন জানানো হবে বলে জানান এবং মন্ত্রণালয়ের সহায়তায় ভস্মীভূত ঘরগুলো পুনঃনির্মাণ করে দেয়ার আশ্বাস দেন।
এ সময় সাংসদ মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম এর পক্ষে ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নাসরিন জাহান চৌধুরী শেফালী, শাহরাস্তি পৌর মেয়র হাজী আবদুল লতিফ, শাহরাস্তি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জেড এম আনোয়ার হোসেন, সূচিপাড়া দক্ষিণ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাহতাব উদ্দিন(হেলাল), ইউপি সদস্য মোরসালিম বাঙ্গালী। উপস্থিত ছিলেন ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মোঃ আবুল কাশেম, ইউনিয় আওয়ামীলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোঃ জাকির হোসেন ফরাজীসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।
উল্লেখ্য, ২৫ ডিসেম্বর (রবিবার) দিনের ১১ ঘটিকায় বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটে। এতে মুহূর্তের মধ্যে ৫টি বসতঘর ও ৫ টি রান্নাঘর ভস্মীভূত হয়। ভস্মীভূত ৪টি ঘরে থাকা নগদ ৭ লক্ষ টাকা,স্বর্ণালঙ্কার, আসবাবপত্র সহ প্রায় ৩৫ লক্ষ টাকার ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে বলে তারা জানিয়েছেন।
২৬ ডিসেম্বর সোমবার সরজমিন পরিদর্শনে গেলে আগুনে ভস্মীভূত হয়ে যাওয়া ঘরগুলোর মালিকরা কান্নায় ভেঙে পড়েন। এসময় তারা জানান, আগুনে তাদের পরিধেয় কাপড় ছাড়া আর কোন কাপড়চোপড় নেই। এমন কোন ব্যবস্থাও নেই যা দিয়ে তারা দ্রুত ঘর নির্মাণ সহ পরিধেয় বস্ত্রাদী ক্রয় করতে পারেন। তাই তাদের সহায়তা প্রয়োজন।
এদিকে আগুনে ভস্মীভূত ঘরের মালিকদেরকে ঘটনারদিন বিকালে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মাহতাব উদ্দিন(হেলাল), ইউপি সদস্য মোরসালিম বাঙ্গালী তাৎক্ষণিকভাবে সংসদ সদস্যের নির্দেশনায় প্রত্যেককে ১বস্তা চাউল ও নগদ দুই হাজার করে টাকা সহায়তা প্রদান করা হয়।
আশপাশের বাড়ির বাসিন্দাদের সাথে কথা বলে জানা যায়, ভস্মীভূত ঘরের মালিকগন সকলে অন্যের জমিতে চাষাবাদ-অটোরিক্সা চালিয়ে জীবন ধারন করেন। এলাকাবাসি ক্ষতিগ্রস্থদের সহায়তা দিয়ে পাশে দাঁড়াবার জন্য সংসদ সদস্যে নিকট জোর দাবি জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *