মতলবে বিদ্যাপিঠে এসে মহাখুশি শিক্ষার্থীরা

৫৪৩ দিন পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলায় শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন। শিক্ষকদের আনন্দের সঙ্গে শিক্ষার্থীদের বরণ করে নিতে দেখা গেছে। মতলবের বেশ কয়েকটি স্কুলে স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষার্থীদের শ্রেণীকক্ষে প্রবেশ করতে দেখা গেছে।

রোববার সকালে মতলবের কয়েকটি স্কুল ঘুরে জানা গেছে, দীর্ঘদিন পর স্কুলে আসার পর শিক্ষার্থীদের মনে হয়েছে প্রথম স্কুলে আসার দিন যেরকম অনুভূতি হয়েছিল, আজ তাদের সেরকম অনুভূতি হচ্ছে। কিছু শিক্ষার্থী উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে যে, অনেকদিন পর সহপাঠীদের সঙ্গে দেখা হওয়ায় বেশ আনন্দ লাগছে।

সকাল ৯টার দিকে স্ট্যান্ডার্ড ট্যালেন্ট একাডেমি’র পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী মোতাছিম আহমেদ স্মরণকে নিয়ে আসেন তার মা মুন্নি আক্তার। এসময় তাদেরকেও তাপমাত্রা পরীক্ষা করে স্কুলে প্রবেশ করানো হয়েছে।

মুন্নি আক্তার বলেন, ‘অনেকদিন পর ছেলেকে স্কুলে নিয়ে আসতে পারায় খুব ভালো লাগছে। দীর্ঘদিন বাসায় থেকে বিরক্ত হয়ে গিয়েছিল। আগে স্কুলে যখন ছেলেকে নিয়ে আসতাম, আর আজকে যে নিয়ে আসলাম এর মধ্যে অনেক পার্থক্য দেখতে পাচ্ছি। করোনার কারণে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ছেলেকে স্কুলে আনতে হয়েছে।’

একাধিক শিক্ষার্থীরা জানান, ‘অনেকদিন পর স্কুলে আসায় বেশ আনন্দ হচ্ছে। স্কুলে প্রথম আসার মতো আনন্দ পাচ্ছি।’
কোন কোন শিক্ষার্থী আবার জানান, ‘নতুন শ্রেণিতে ওঠার পর আজকেই প্রথম ক্লাসে আসলাম। অনেকদিন পর শিক্ষক-সহপাঠীদের সঙ্গে দেখা হলো। আমি খুবই আনন্দিত। স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষকরা আমাদের বরণ করে নিয়েছেন।’

স্ট্যান্ডার্ড ট্যালেন্ট একাডেমি’র অধ্যক্ষ রাধেশ্যাম মন্ডল বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের বরণ করতে ক্লাসরুমগুলো সাজানো হয়েছে। শিক্ষার্থীদের মনে যেন করোনার ভয় না থাকে, সেজন্যে শিক্ষকরা আজকে অনুপ্রেরণামূলক ক্লাস নেবেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘স্বাস্থ্যবিধির বিষয়ে শিক্ষার্থীদের আগেই নির্দেশনা দেওয়া হয়েছিল। তা নিশ্চিত করতে অভিভাবকদের সঙ্গেও বৈঠক করেছি। আজকে তারা স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে এসেছে। সবাই যেন স্বাস্থ্যবিধি মানেন, তা নিশ্চিত করতে আমাদের পক্ষ থেকে ব্যবস্থা নিয়েছি। সামাজিক দূরত্ব মেনে শিক্ষার্থীদের ক্লাসরুমে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে।’ আজকে শুধু সিলেবাস পরিচিতি ক্লাস নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

মতলব দক্ষিণের স্ট্যান্ডার্ড ট্যালেন্ট একাডেমিতে সকাল ৮টা থেকে শিক্ষার্থীদের শ্রেণীকক্ষে প্রবেশ করানো হয়। স্কুল কর্তৃপক্ষকে স্কুলের প্রবেশ পথে শিক্ষার্থীদের হাত পরিষ্কার করার পর তাদের চকলেট দিয়ে প্রবেশ করাতে গেছে।

এ সময় মতলব দক্ষিণ থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মহিউদ্দিন মিয়া, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ঢাকা মহানগর উত্তরের দুই দুইবারের সাবেক সহ-সভাপতি ও বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি একাডেমির উপদেষ্টা ইসমাইল হোসেন তপু, ৬ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোঃ সাইফুল ইসলাম মোহন ও একাডেমির প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক মোঃ আশরাফুল জাহান শাওলিনসহ একাডেমির শিক্ষক-শিককা, কর্মচারী, অভিভাবক, শুভাকাঙ্খী ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে শিক্ষার্থীদের ফুল দিয়ে বরণ করেছে কর্তৃপক্ষ।

মতলব প্রতিনিধি

Leave a Reply

Your email address will not be published.