শীতার্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানো জরুরী

কাজী মোহাম্মদ ইব্রাহীম জুয়েল শীত যেন ঝেঁকে বসেছে চাঁদপুরের সর্বত্র। তীব্র শীতে শ্রমজীবীদের দৈনন্দিন কাজ করতে কষ্ট হয়। শ্রম বিক্রি করা প্রায় অসম্ভব হয়ে ওঠে। ফলে তাদের আয় কমে, সংসার চালানো কষ্টকর হয়ে দাঁড়ায়। কারণ, শ্রমজীবী গোষ্ঠীর সবাই দিনে এনে দিনে খাওয়া মানুষ। এ ছাড়া শীত পড়লে শিশু ও বৃদ্ধরা শীতজনিত নানা রোগে আক্রান্ত হন। তাদের কষ্টও বেড়ে যায়। শীতের শুরুতে শিশু ও বৃদ্ধরা উষ্ণ পরিবেশে থাকলে অথবা রাখা হলে শীতের রোগগুলো থেকে মুক্ত থাকতে পারবেন। শুধু তাই নয়, অতিরিক্ত তাপমাত্রা কমে গেলে শস্যেরও ক্ষতি হয়ে কৃষকের দুশ্চিন্তা বাড়িয়ে দেয়।
বিপুল এই মানুষের জীবনে শীত মানেই হলো, কষ্টের জীবন। অভাব-অনটন ও দুর্দশাগ্রস্ত এসব মানুষের শীতে কাজ করতে যেমন কষ্ট হয়, তেমনি টাকার অভাবে শীত নিবারণের জন্য প্রয়োজনীয় গরম কাপড় কিনতে পারেন না তারা। এতে করে এসব পরিবারের শিশু-বৃদ্ধরাও আক্রান্ত হন শীতজনিত রোগে। তাদের এ দুর্ভোগ লাঘবে সচ্ছল ব্যক্তিদের সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতে হবে; সাহায্য করতে হবে অর্থ ও গরম কাপড় দিয়ে। সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোকে শীতেকাতর মানুষজনকে সহযোগিতার জন্য এখনই এগিয়ে আসা দরকার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *