শেষ হচ্ছে অপেক্ষার প্রহর

রণবীর-আলিয়ার বিয়ে নিয়ে ইতিমধ্যেই সরগরম সোশ্যাল মিডিয়া। আর মাত্র কয়েক দিনের অপেক্ষা। শুটিংয়ের ব্যস্ততার মধ্যেই চার হাত এক হতে যাচ্ছে রণবীর-আলিয়ার। টাইমস অব ইন্ডিয়ার তথ্যমতে, বলিউডের ঘনিষ্ঠ সূত্র থেকে জানা গেছে আলিয়ার নানার ইচ্ছা পূরণের জন্য ১৭ এপ্রিল সাত পাকে বাঁধা পড়তে চলেছেন রণবীর-আলিয়া। আর এই বিয়ের আয়োজন চলবে ১৩ থেকে ১৭ এপ্রিল পর্যন্ত। এ সময়ের মধ্যে পারিবারিকভাবে মেহেদি আর গানের আয়োজন সেরে ফেলা হবে। এপ্রিলের এই সময়টাতে কাছের বন্ধু-পরিজনদের কোনো কাজ না রাখতে বলেছেন রণবীর-আলিয়া জুটি।

চেম্বুরে কাপুর ফ্যামিলির ঐতিহ্যবাহী পৈতৃক বাড়ি। ১৯৮০ সালে সেখানেই বসেছিল ঋষি কাপুর ও নীতু কাপুরের বিয়ের আসর। আর ওই ঐতিহ্যবাহী বাড়িতেই বসছে বিয়ের আসর। সেখানেই সাত পাকে বাঁধা পড়বেন রণবীর ও আলিয়া জুটি। তবে বলিপাড়ার অন্যান্য তারকার মতো ডেস্টিনেশন ওয়েডিং করছেন না তাঁরা। কাপুর ও ভাট পরিবারের লোকজনকে নিয়েই ঘরোয়াভাবেই বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হতে চলেছেন এই জুটি। পরিবার ও আত্মীয়স্বজন ছাড়াও তাঁদের প্রিয় বন্ধুরা উপস্থিত থাকছেন বিয়েতে।

আলিয়ার নানা নরেন্দ্রনাথ রাজদানের রণবীরকে বেশ পছন্দ করেন এবং তাঁকে অনেক ভালোবাসেন। তাঁর শারীরিক অবস্থা খুব একটা ভালো না। বার্ধক্যের কারণে তিনি অনেকটা শয্যাশায়ী।

 শেষ-হচ্ছে-অপেক্ষার-প্রহর

তিনি আলিয়া-রণবীরের বিয়ে দেখার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন। দুই পরিবারের জন্য এই বিয়ের আয়োজন জাঁকজমকপূর্ণ হওয়ার কোনো প্রয়োজন আসলে নেই। তাঁরা দুজন ইতোমধ্যে একসঙ্গে থাকছেন। মূলত আলিয়ার নানার ইচ্ছা পূরণের জন্যই এই ছোট্ট পরিসরের আয়োজন। পরিবারের ঘনিষ্ঠ একটি সূত্র টাইমস অব ইন্ডিয়াকে এসব কথা জানান।

পিঙ্কভিলা জানায়, আলিয়া বিয়ের পিঁড়িতে বসবেন মানিশ মালহোত্রা এবং সব্যসাচীর ডিজাইন করা পোশাকে। এপ্রিলের শেষের দিকে এই দম্পতি তাঁদের ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির বন্ধুদের জন্য পার্টির আয়োজন করবেন।

আরও জানা গেছে, বিয়ে উপলক্ষে ব্যাচেলর পার্টির আয়োজন করছেন রণবীর কাপুর। অর্জুন কাপুর, আদিত্য রয় কাপুর, অয়ন মুখোপাধ্যায়সহ রণবীরের ছোটবেলার বন্ধু ও কয়েকজন ঘনিষ্ঠ সহকর্মীই উপস্থিত থাকছেন ব্যাচেলর পার্টিতে। তবে ব্যাচেলর পার্টির দিনক্ষণ এখনো জানা যায়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.